ঐতিহাসিক সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিজেপি সরকার। জম্মু ও কাশ্মীর থেকে উঠে গিয়েছে ৩৭০ ধারা। উপত্যকা থেকে এই বিশেষ মর্যাদার তকমা উঠে যাওয়ায় বিজেপি শিবিরে এখন উৎসবের ঢেউ। সেই আনন্দেই উত্তরপ্রদেশের বিজেপির বিধায়ক এমন মন্তব্য করে বসলেন যাকে ঘিরে এই মুহূর্তে বিতর্কের ঝড় উঠেছে।  

উত্তরপ্রদেশের মুজফফরনগরের বিজেপি  বিধায়ক বিক্রম সাইনি এদিন  বলেন, দলের কর্মীরা অনেকদিন ধরে অপেক্ষা করছিলেন। এবার আর কোনও বাধা রইল না। কাশ্মীরের ফর্সা মহিলাদের বিয়ে করতে পারবেন। 

বিধায়কের এই মন্তব্যের ভিডিও এই মুহূর্তে সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়। এই মন্তব্য ঘিরেই শুরু হয়েছে জোর বিতর্ক। 

৩৭০ ধারা তুলে দেওয়ার পরে জম্মু-কাশ্মীর এখন কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল। সেই সাফল্য এক সভায় উদযাপন করছিলেন বিক্রম সাইনি। সেখানেই তিনি বলেন, আমাদের কর্মীদের মধ্যে যাঁদের এখনও বিয়ে হয়নি, তাঁদের খুব আনন্দ। কারণ ওরা এবার কাশ্মীরি মহিলাদের বিয়ে করতে পারবেন। আর কোনও বাধা রইল না। আগে কাশ্মীরের মহিলারা যদি উত্তরপ্রদেশের ছেলেকে বিয়ে করতেন, তাঁরা নিজেদের সম্পত্তি ও নাগরিকত্ব হারাতেন। কিন্তু এখন আর সেই বাধা নেই। এখন হিন্দু বা মুসলিম সবারই এই আনন্দ উপভোগ করা উচিত। 

প্রসঙ্গত, ৩৭০ ধারার সঙ্গে বাতিল হয়েছে ৩৫ এ ধারা। এই ধারা ঠিক করে দিত কে কাশ্মীরের নাগরিক, কে নয়। এই ধারা অনুযায়ী, কোনও মহিলা অন্য রাজ্যের কারোকে বিয়ে করলে, তিনি সমস্ত সম্পত্তি থেকে বঞ্চিত হতেন। নাগরিকত্বও হারাতেন।