করোনাভাইরাসের মতো মহা বিপর্যয়ের সামনে পড়েও এতটুকু বদল নেই ভারতীয় সমাজে। মানুষে মানুষে ভেদাভেদ করা থেকে কুসংস্কারের চর্চা - লকডাউনের মধ্যেও চলছে সমানতালে। বিহার পুলিশ জানিয়েছে, মুজফ্ফরপুর জেলায় তিন মহিলাকে সম্প্রতি ডাইনি হিসাবে চিহ্নিত করে একদল লোক প্রস্রাব পান করতে বাধ্য করেছে এবং তাদের মাথার চুল পুরো কামিয়ে দিয়েছে। এই ঘটনায় জড়িত সন্দেহে ইতিমধ্যে নয় জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

পুলিশ জানিয়েছে, ঘটনাটি ঘটেছে সোমবার। মঙ্গলবারই এই ঘটনায় জড়িত নয়জনকে গ্রেফতার করেছে তারা। এই লজ্জাজনক ঘটনার একটি ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে। বিহারের বিরোধী দল রাষ্ট্রীয় জনতা দল বা আরজেডি-ও ২ মিনিট ২০ সেকেন্ডের এই ভিডিও ফুটেজটি সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করেছে। জানা গিয়েছে, আক্রান্ত ওই তিন মহিলা বা গ্রামবাসীরা কেউ ওই ঘটনা সম্পর্কে পুলিশে কোনও অভিযোগ জানায়নি। সোশ্যাল মিডিয়ার ওই ভিডিও-র ভিত্তিতেই ১০ জনের নামে এফআইআর দায়ের করেছে পুলিশ।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (পূর্ব) অমিতেশ কুমার জানিয়েছেন, 'সোমবার জেলার ডাকরামা গ্রামে এই ঘটনা ঘটে। এফআইআরে নাম প্রকাশিত ১০ জনের মধ্যে নয় জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে'। তিনি বলেছিলেন, আরও বেশ কয়েকজনের নাম এই ঘটনায় উঠে আসছে। তারাই ওই মহিলাদের মাথা ন্যাড়া করে দিয়েছিল বলে জানতে পেরেছে পুলিশ। এই ব্যক্তিদের চিহ্নিত করে তাদের অনুসন্ধান চালাচ্ছে পুলিশ। খোঁজ পেলেই তাদেরও গ্রেফতার করা হবে।

তিনি আরও জানিয়েছেন, পুলিশ অত্যন্ত গুরুত্ব সহকারে বিষয়টিকে দেখছে। সোশ্যাল মিডিয়ার মারফত ঘটনাটি জানার পরি পুলিশ দ্রুত ব্যবস্থা নিয়েছে। তদন্ত এগোলে ঘটনাটি সম্পর্কে আরও বিশদ তথ্য পাওয়া যাবে। মুজফ্ফরপুরের এসডিও (পূর্ব) কুন্দন কুমার বলেছেন, 'তদন্ত শেষ হলে পুলিশ আইন অনুযায়ী সবরকম ব্যবস্থা নেবে'।