পথ চলার আগেই রেকর্ড তৈরি করল প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর স্বপ্নের বুলেট ট্রেন। ন্যাশানাল হাইস্পিড রেলওয়ে কর্পোরেশন দেশের সবথেকে বড় আর্থিক সামাজিক চুক্তিটি করল।  লার্সেন অ্যান্ড টুবরোর সঙ্গে ২৫ হাজার কোটি টাকার চুক্তি করা হয়েছে। আমাদাবাদ থেকে মুম্বইয়ের বুলেট ট্রেন চলাচলের জন্যই এই চুক্তি করা হয়েছে। 

ইতিমধ্যেই এল অ্যান্ড টি তার কাজ শুরু করে দিয়েছে। সংস্থার পক্ষ থেকে জানান হয়েছে তারা শ্রমিকদের প্রকল্প স্থানে পাঠিয়ে দিয়েছে। অন্যদিকে এনএইচআরএসসিএল বৃহস্পতিবারই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে তাদের কাজ সম্পর্কেও অবগত করেছে। গুজরাটের দিকে ৩২৫ কিলোমিটার এলাকায় কাজ শুরু হয়েছে বলেও জানান হয়েছে। তবে তারা মহারাষ্ট্রের দিকে জমি পাওয়ার জন্য অপেক্ষা করে রয়েছে বলেও জানিয়েছে। 

বুলেট ট্রেনের পরিকল্পনা নিয়ে মহারাষ্ট্র সরকারের সঙ্গে কিছুটা টানাপোড়েন চলছে কেন্দ্রীয় সরকারের। এই পরিস্থিতিতে বুলেট ট্রেন প্রকল্পের কাজ থমকে গেছে। জাপানের সঙ্গে যৌথ উদ্যোগে বুলেট ট্রেন পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়েছে। সেক্ষেত্রে জাপানের রাষ্ট্রদূত সাতোশি সুজুকি জানান এই পরিকল্পনা শুধু ভারত-জাপানের সঙ্গে প্রযুক্তিগত ব্যবহারে উৎসাহিত করবে না। এই প্রকল্পটির মাধ্যমে প্রত্যন্ত এলাকাতেও উন্নয়নের আলো পৌঁছে যাবে বলে আশা প্রকাশ করেছেন তিনি। বুলেট ট্রেনের প্রথম প্রকল্পটি শেষ হওয়ার পরে আরও সাতটি ট্রেন করিডোর তৈরির চিন্তাভাবনা রয়েছে সরকারের।