নাগরিকত্ব সংশোধনী বিলকে অনুমোদন দিল কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভা। আশা করা হচ্ছে আগামী সপ্তাহে বিলটি সংসদে পেশ করা হবে। সেকারণে সব দলীয় সাংসদকে বাধ্যতামূলকভাবে শীতকালীন অধিবেশনের বাকি সময়ে হাজির থাকতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। 

নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল ছাড়াও জম্মু-কাশ্মীর সংরক্ষণ বিল (দ্বিতীয় সংশোধনী)২০১৯, ব্যক্তিগত তথ্য সুরক্ষা বিল ২০১৯ ও কেন্দ্রীয় সংস্কৃত বিশ্ববিদ্যালয় বিলেও শুক্রবার অনুমোদন দিয়েছে ক্যাবিনেট। 

অসমের পর এবার গোটা দেএশ এনআরসি লাগু করা হবে। সংসদে একথা স্পষ্ট করে দিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। ২০২৪ সালের মধ্যে গোটা দেশএ এনআরসি লাগু হবে বলে ঝাড়খণ্ডে ভোটপ্রচারে গিয়ে জানিয়েছেন শাহ। 

তবে এই বিলকে ঘিরে ইতিমধ্যে উত্তর পূর্বের বিভিন্ন রাজ্যে প্রতিবাদের ঝড় উঠেছে। বিলের ফলে বহু বেআইনি বাংলাদেশি নাগরিকত্ব পাবনে বলে আশঙ্কা তৈরি হয়েছে উত্তর-পূর্বের রাজ্যগুলিতে। এই বিলটি গতবার লোকসভায় পাস করা গেলেও রাজ্যসভায় পাস করা যায়নিয বিলটি পাঠান হয়েছিল সংসদীয় যৌথ কমিটিতে। 

চলতি বছর শীতকালীন অধিবেশনে বিলটি পাস করাতে মরিয়া মোদী সরকার। সূত্রের খবর ৯ ডিসেম্বর বিলটিক খসড়া লোকসভায় পেশ করা হবে। রাজ্যসভায় পেশ করার কথা ১০ ডিসেম্বর।