অসমের জাতীয় নাগরিকপঞ্জীর চূড়ান্ত তালিকা থেকে বাদ গিয়েছে প্রায় ১৯ লক্ষ মানুষের নাম। শনিবার অসমের নাগরিকপঞ্জীর চূড়ান্ত তালিকা বাদ পড়ার পর থেকেই কালো মেঘের ছায়া ঘনিয়ে এসেছিল অসংখ্য অসমবাসীর মনে। কারণ যাঁদের নাম তালিকা থেকে বাদ পড়েছে তাঁদের সামনে এখন বড় চ্যালেঞ্জ। 

আর এবার সেই তালিকা থেকেই বাদ পড়লেন অসমের খ্যাতনামা বৈজ্ঞানিক ডক্টর জিতেন্দ্রনাথ গোস্বামী। চন্দ্রযান-২ অভিযানের অন্যতম উপেদেষ্টা হলেন তিনি। তবে শুধু তিনিই নন, বাদ যান তাঁর গোটা পরিবার। একটি সংবাদ সংস্থাকে দেওয়া সাক্ষাতকারে জিতেন্দ্রনাথ গোস্বামী জানিয়েছেন, গত ২০ বছর ধরে তাঁরা আহমেদাবাদে বসবাস করছেন ঠিকই, কিন্তু তাঁর পৈত্রিক বাড়ি অসমে, এবং সেখানেই তাঁর পরিবারের অনেকেই থাকেন, জোরহাটে তাঁদের জমি-জমাও রয়েছে। তবে বর্তমানে আহমেদাবাদে থাকার জন্য এনআরসি তালিকায় নাম তোলার জন্য যা যা করা দরকার তা করা হয়ে ওঠেনি তাঁর। তবে তিনি আরও জানান যে,ভবিষ্যতে কোনও সমস্যা হলে অসমে তাঁদের জমির দলিল দেখিয়ে কোনও কিছু করা সম্ভব হয় কিনা সেটাই চেষ্টা করবেন। 

তবে এনআরসি-র স্টেট কো-অর্ডিনেটরের তরফে এও বলা হয় যে, এনআরসি তালিকা থেকে বাদ পড়া মানেই তাঁকে বিদেশী বলে ঘোষণা করা হবে না। এনআরসি তালিকায় এবার যাঁদের নাম ওঠেনি তাঁরা সকলেই ফরেনার্স ট্রাইব্যুনালে আবেদন করার সুযোগ পাবেন। আপিল করার সময়সূচী ৬০ দিন থেকে বাড়িয়ে দিয়ে করা হয়েছে ১২০ দিন।