ধর্মীয় রীতি মেনে উপবাস অনেকেই করেন। কিন্তু এই খবর পড়ার পর থেকে উপবাস করার কথা আবার ভেবে দেখুন। জৈন ধর্মাবলম্বীএক যুবতী নিয়ম মেনে আট দিন ধরে উপবাস রেখেছিলেন। আর তার পরই হৃদরোগে আক্রান্ত হয় মৃত্যু হয় ওই যুবতীর। 

একটি সর্বভারতীয় সংবাদ সংস্থা সূত্রে জানা গিয়েছে, মাতুঙ্গা নিবাসী  একতা আশুভাই গালা নামে ২৫ বছর বয়সী এক মহিলা অগাস্ট মাসে তাঁর বাপের বাড়ি যান এবং সেখানেই 'পরিউশন' নামে একটি বার্ষিক পবিত্র অনুষ্ঠান উপলক্ষ্যে উপবাস রাখেন তিনি। তাঁর এক আত্মীয় জানিয়েছেন,গত ২৭ অগাস্ট থেকে একতা ৮দিনের একটা উপবাস রেখেছিলেন। পাঁচ দিন উপবাস যাপনের পর তাঁর শারীরিক অবস্থার অবণতি হতে শুরু করে এবং তাঁকে কচ্ছ-এর একটি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

নিখোঁজ ল্যান্ডার বিক্রম, তবুও ব্যর্থ নয় ভারতের দ্বিতীয় চন্দ্রাভিযান, জানুন কেন

'যা করতে পারো না তা করো কেন'- চন্দ্রযান ২ নিয়ে ভারতকে কটাক্ষ পাকিস্তানের বিজ্ঞান মন্ত্রীর

শৈশবে চটি কেনার সামর্থ্য ছিল না, চাঁদকে ছোঁয়ার স্বপ্ন দেখালেন কৃষক পরিবারে জন্মানো শিভন

তাঁর অবস্থা দেখে হাসপাতালের চিকিৎসক এবং জৈন মহারাজ তাঁকে উপবাস ভঙ্গ করার নির্দেশ দেয়, এবং দিনে অন্তত একবেলা খাওয়ার পরামর্শ দেয়। কিন্তু সেই কথা শোনেননি সেই যুবতী।  এরপর গত ৩ সেপ্টেম্বর তাঁর অবস্থার আরও অবণতি শুরু হলে তাঁকে গ্লুকোজ দেওয়া হয়। কিন্তু তাও তিনি উপবাস ভাঙতে রাজি হননি। জৈন ধর্মের নিয়ম অনুসারে উপবাস চলাকালে কেবল ফোটানো জল খেয়েই ছিলেন তিনি। আর তার ফলেই হৃদরোগে আক্রান্ত হয় সে। 

প্রসঙ্গত, অগাস্ট ও সেপ্টেম্বর মাসে প্রতি বছর জৈন ধর্মে এই বিশেষ  ধর্মীয় আচার পালিত হয়। এই পবিত্র উৎসবে উপবাস রেখেই প্রার্থনায়ে যোগ দেওয়াই নিয়ম। আর নিয়মের বলি হয়েই অকালে প্রাণ গেল এই যুবতীর।