আরও চারদিন অন্তত সিবিআই-এর হেফাজতেই থাকতে হবে প্রাক্তন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী তথা কংগ্রেস নেতা পি চিদম্বরমকে। আইএনএক্স মিডিয়া মামলায় এদিন নয়াদিল্লিতে সিবিআই আদালতে তুলেছিল সিবিআই। তারা চিদম্বরমকে পাঁচদিনের জন্য হেফাজতে নিতে চেয়েছিল। স্বাভাবিকভাবেই যার বিরোধিতা করেছেন চিদম্বরমের আইনজীবী কপিল সিব্বল, অভিষেক মনু সিংভি, সলমন খুরশিদরা। কিন্তু তারপরেও আদালত তাঁকে সিবিআই হেফাজতেই পাঠালো। প্রতিদিন অবশ্য পরিবারের লোকজন ও আইনজীবীদের সঙ্গে দেখা করার সুযোগ পাবেন তিনি। তবে তা মাত্র ৩০ মিনিটেক জন্য।

আদালতে সিবিআই-এর যুক্তি

এদিন চিদম্বরমকে হেফাজতে নেওয়ার জন্য সিবিআই বেশ কিছু যুক্তি দিয়েছে। বলা হয়েছে এই মামলায় কোনও গুরুতর ষড়যন্ত্র রয়েছে। যার জন্য তাঁকে ধারাবাহিক জিজ্ঞাসাবাদের প্রযোজন আছে। আরও বলা হয় চিদম্বর সহ মামলায় জড়িত প্রত্যেকেই অত্যন্ত বুদ্ধিমান। তাই তদন্তে অসহয়োগিতা করার দারুণ সম্ভাবনা রয়েছে। এই মামলার শিকড়ে না পৌঁছতে পারলে তাঁরা দায়িত্ব পালন করতে পারবেন না।

চিদম্বরমের আইনজীবীদের পাল্টা যুক্তি

প্রাক্তন অর্থমন্ত্রীর আইনজীবীরা, সিবিআই-এর আবেদনের বিরোধিতা করে পাল্টা যুক্তি দেন, তদন্তে অসহযোগিতার প্রশ্নই নেই, কারণ ২০১৮ সালের ৬ জুনের পর থেকে সিবিআই তাঁকে মাত্র একবারই ডেকেছে, এবং তিনি হাজিরও হয়েছিলেন। আর তাঁর বিরুদ্ধএ প্রমাণ বলতে রয়েছে আরেক অভিযুক্ত ইন্দ্রানী মুখোপাধ্যায়ের বয়ান।

কিন্তু তারপরেও তাঁর সিবিআই হেফাজত আটকানো যায়নি। এদিন শুনানি চলাকালীন আদালত কক্ষে আইনজীবীরা ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন তাঁর স্ত্রী নলিনী চিদম্বরম ও পুত্র কার্তি চিদম্বরম।