সদ্য রাজ্যসভায় সারা দেশেই এনআরসি তৈরির কথা জানিয়েছেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। কিন্তু তার অনেক আগেই নাগরিকত্ব বাতিল হল তেলেঙ্গানার বিধায়ক রমেশ চেন্নামানেনি-র। কেন্দ্রের তরফে জানানো হয়েছে, রমেশ চেন্নামানেনি একজন জার্মান নাগরিক এবং তা তিনি গোপন করে, প্রতারণার মাধ্যমে ভারতীয় নাগরিকত্ব অর্জন করেছিলেন।

তেলেঙ্গানায় এইবার সরকার গড়তে পারেনি কেসিআর-এর তেলেঙ্গানা রাষ্ট্র সমিতি। তবে সেই দলের হয়েই হায়দরাবাদ থেকে মাত্র ১৫০ কিলোমিটার দূরের ভেমুলাওয়াড়া বিধাসভা কেন্দ্রে জিতেছিলেন চেন্নামানেনি। তাঁর বিরুদ্ধেই বিদেশ সফরের বিষয়ে তথ্য গোপন করার দাবি করেছে কেন্দ্র। তবে এর বিরুদ্ধে চেন্নামানেনি তেলেঙ্গানা হাইকোর্টে মামলা করবেন বলে জানা গিয়েছে।  

নাগরিকত্ব আইন অনুসারে ভারতের নাগরিকত্ব পেতে গেলে ভারতে অন্তত ১১ বছর কাটাতে হয়। সেই সঙ্গে নাগিকত্বের আবেদন করার ঠিক আগের ১২ মাস ভারতে থাকতে হয়। কেন্দ্রের বিবৃতিতে বলা হয়েছে চেন্নামেনানি ভারেতীয় নাগরিকত্বের জন্য আবেদন করার আগের একবছর পুরো সময় ভারতে কাটাননি। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক জানিয়েছে এই সত্যটি গোপন করে গিয়েছিলেন টিআরএস বিধায়ক। নাহলে মন্ত্রক কর্তৃপক্ষ তাঁকে নাগরিকত্ব দিত না।

মন্ত্রকের বিবৃতিতে আরও বলা হয়েছে এই সত্য গোপনের বিষয়টটি জানার পরই সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ মনে করেছে চেন্নামানেনি-কে ভারতের নাগরিক হিসাবে থাকাটা জনসাধারণের পক্ষে উপযুক্ত নয়। আরর সেই কারণেই তাঁর নাগরিকত্ব বাতিল করা হয়েছে।

২০১৭ সালে এক স্থানীয় বিজেপি নেতা প্রথম অভিযোগ করেছিলেন রমেশ চিন্নামানেনি জার্মান নাগরিক। এরপরই তাঁর বিরুদ্ধে তদন্ত শুরু হয়েছিল।