ফের সমস্যায় স্ট্যান্ড-আপ কমেডিয়ান কুনাল কামরা। বুধবার রিপাবলিক টিভির সাংবাদিক অর্ণব গোস্বামীর অন্তর্বর্তীকালীন জামিন মঞ্জুর করেছিল সুপ্রিম কোর্ট। এই নিয়ে টুইট করে ভারতের শীর্ষ আদালতের সমালোচনা করেছিলেন কুনাল। এই নিয়ে তাঁর বিরুদ্ধে শীর্ষ আদালত অবমাননার অভিযোগ উঠেছে।

শুক্রবার কুনাল কামরার বিরুদ্ধে মামলা করতে আগ্রহী এমন আট জনকে সম্মতি দিয়েছেন ভারতের অ্যাটর্নি জেনারেল কে কে বেনুগোপাল। তিনি বলেন, সুপ্রিম কোর্টকে অন্যায্য এবং নির্লজ্জভাবে আক্রমণ করলে শাস্তি পেতে হবে, তা মানুষকে বোঝানো দরকার। অ্যাটর্নি জেনারেলের মতে কুনীাল কামরার টুইটগুলি স্পষ্টতই 'হাস্যরসের রেখা অতিক্রম করে অবজ্ঞা'য় পৌঁছে গিয়েছে। জানা গিয়েছে, এই বিষয়ে শিরং কাটনেশ্বরকর নামে এক আইন শিক্ষার্থী এবং দুইজন আইনজীবী, কে কে বেনুগোপাল-কে চিঠি লিখে কুনালের বিরুদ্ধে অভিযোগ জানিয়েছিলেন। ২৪ ঘন্টা না পার হতেই তাঁদের মামলা করার অনুমতি দেন অ্যাটর্নি জেনালের।

বুধবার, শীর্ষ আদালত ২০১৮ সালের একটি আত্মহত্যায় ঘটনায় প্ররোচনা দেওয়ার মামলায় রিপাবলিক টিভির সাংবাদিক অর্ণব গোস্বামীকে জামিন দিয়েছিল। স্থপতি অন্বেয় নায়েক এবং তার মায়ের আত্মহত্যায় প্রয়োচনা দিয়েছেন অভিযোগে গত সপ্তাহে গ্রেফতার করা হয়েঠছিল অর্ণবকে। তাঁকে জামিন দেওয়ার পর থেকেই কুনাল কামরা একাধিক টুইট করে, সুপ্রিম কোর্টের বিরুদ্ধে ক্ষোভ প্রকাশ করেছিলেন।

এর আগে চলতি বছরের জানুয়ারিতে কুনাল কামরা-র বিরুদ্ধে মুম্বই থেকে লখনউ যাওয়ার পথে, ইন্ডিগো-র একটি বিমানে অর্ণব গোস্বামীকে হেনস্থা করার অভিযোগ উঠেছিল। কুনাল কামরার পোস্ট করা ভিডিওতে অবশ্য দেখা গিয়েছিল, তিনি অর্ণব গোস্বামীকে কিছু প্রশ্ন করছেন, যার কোনও জবাব দিচ্ছেন না অর্ণব। ওই ঘটনার পর বেশ কয়েকটি বিমান সংস্থা তাঁকে নিষিদ্ধ করেছে।