বিজেপির পথেই হাঁটতে চলেছে কংগ্রেস। বিজেপি আইটি যেমন জোরদার তেমনই একটি জোরদার আইসি সেল তৈরি করার পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে কংগ্রেস। রাহুল গান্ধীর নেতৃত্বে সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি বড়সড় পরিবর্তন আনতে চলেছে এই দল। সোশ্যাল মিডিয়ায় যোগদান করার লক্ষ্যে কংগ্রেস একটি ক্যাম্পেইন শুরু করেছে। যেখানে বলা হয়েছে কংগ্রেস সোশ্যাল মিডিয়ায় যোগ দিন। আর ঘৃণার বিরুদ্ধে লড়াই করুন। 

কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী একটি ভিডিও বার্তায় বলেছেন সত্য, মমত্ববোধ আর সম্প্রীতির পক্ষে লড়াই করার জন্য দেশে অহিংস যোদ্ধাদের প্রয়োজন। আর সেই লক্ষ্যেই কংগ্রেসের সোশ্যাল মিডিয়ায় যোগ দেওয়ার কথা বলেছেন তিনি। এআইসিসি-র সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রধান রোহান গুপ্তা ও দলের মুখপাত্র পবন খেরার নেতৃত্বেই মূলত এই ক্যাম্পেইন শুরু হয়েছে। পবন কুমার বানসাল বলেছেন, সোশ্যাল মিডিয়ায় পাঁচ লক্ষ্য স্বেচ্ছাসেবীকে নিয়োগ করার লক্ষ্যেই এই প্রচার অভিযান শুরু করা হচ্ছে। 

মাত্র ২ সেকেন্ডেই কেল্লাফতে, করোনাভাইরাসে আক্রান্ত কিনা তা পরীক্ষা করছে সারমেয় ...

রাজ্যসভায় গুলাম নবির বিদায়ী ভাষণে কেঁদে ফেললে প্রধানমন্ত্রী, বিরোধী সাংসদের ভাষণে নন্দিত মোদী অমিত শ..

ভিডিও বার্তায় রাহুল গান্ধী বলেছেন, দেশের একজন নাগরিক হিসেবে আপনি জানেন যে এই দেশে কী চলছে। আপনার কাছে কিছুই আর গোপন নেই। স্কুল, কলেজ আর বিশ্ববিদ্যালয়গুলিরে নিপীড়ন শুরু হয়েছে। যা আপনি দেখতে পাচ্ছে। আর এই ঘটনা ভারতের ধারনার উপর আক্রমণ। দিল্লির বাইরে তাকালেই দেখা যাবে কৃষকদের আন্দোলন। বিজেপি আইটি সেলকে কিছুটা কটাক্ষ করে তিনি বলেন দেখতে পাবেন ট্রোল আর্মি কী বাবে কৃষকদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করেছে। উদারপন্থী মনোভাব, শান্তি ও সহানুভুতি রক্ষার জন্য কাজ করার আহ্বান জানান হয়েছে। তিনি আরও বলেন ট্রোল, ঘৃণা আর ভুল তথ্য ছড়িয়ে দেওয়া রুথতে একটি বাহিনী তৈরি করা অত্যন্ত প্রয়োজন। আর সেই লক্ষ্যেই কংগ্রেসের সঙ্গে যোগ দেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন তিনি। 

দলের এক নেতা জানিয়েছেব দলীয় ওয়েব সাইট, টোল ফি নম্বর, ওয়াটসঅ্যাপের মাধ্যমে এই প্রচারাভিযানে যোগ দেওয়ার জন্য় আহ্বান জানান হয়েছে। এই প্রচারের মূল উদ্দেশ্যই হল একটি স্বেচ্ছাসেবক বাহিনী তৈরি করা। কংগ্রেস বা তার আদর্শের যার বিশ্বাসী তাদের একত্রিত করা, যাতে তারা একসঙ্গে আওয়াজ তুলতে পারে।