শেষ পর্যন্ত সনিয়া গান্ধীর হাতেই অবসান হল মহারাষ্ট্রের মহানাটকের। এদিন বিকেলে শিবসেনা প্রধান উদ্ধব ঠাকরে নিজে ফোন করেন কংগ্রেসের ভারপ্রাপ্ত সভানেত্রীকে। তারপরই সনিয়া এনসিপি প্রধান শরদ পওয়ারকে ফোন করে মহারাষ্ট্রে শিবসেনা সরকারকে সমর্থন করার কথা জানান। ফলে এইবার বালাসাহেব ঠাকরে-কে দেওয়া কথা রাখতে চলেছেন উদ্ধব ঠাকরে। মহারাষ্ট্রের মসনদে এবার বসবেন এক শিবসৈনিকই।

রবিবার বিজেপি সরকার গঠন করার প্রস্তাব ফিরিয়ে দেয়। তারপর থেকেই শিবসেনা, এনসিপি ও কংগ্রেস তিনদলই দফায় দফায় বৈঠক করে। এদিন সকালে কংগ্রেসের কোর কমিটির বৈঠক হয়। সেখানেও কোনও সিদ্ধান্ত হয়নি। সনিয়া জানান, বিকেলে রাজ্যের কংগ্রেসের জয়ী বিধায়কদের সঙ্গে কথা বলেই শিবসেনাকে সমর্থনের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবেন।

অন্যদিকে এনসিপি প্রধান শরদ পওয়ারের সঙ্গে বৈঠকে বসেন শিবসেনা প্রধান। শরদ পওয়ার জানিয়ে দেন, কংগ্রেসের সিদ্ধান্তের জন্য তিনি অপেক্ষা করবেন। কংগ্রেস যদি শিবসেনাকে সমর্থন করতে চায় তাহলে শিবসেনার সঙ্গে সরকার গঠনে তাঁর আপত্তি নেই। কিন্তু কংগ্রেস যদি নাকচ করে দেয়, তাহলে তাঁরাও শিবসেনাকে সমর্থন করবেন না।

এরপরই উদ্ধব ঠাকরে ফোন করেন কংগ্রেস সভানেত্রী সনিয়া গান্ধীকে। সনিয়া তখনও কিছু না জানালেও দলীয় বিধায়কদের ইচ্ছাকে গুরুত্ব দিয়েই তিনি শিবসেনাকে সমর্থনের কথা জানিয়ে দেন। তারপরই রাজ্যপালের কাছে গিয়ে তাঁর দেওয়া সময়সীমার মধ্যেই সরকার গঠনের দাবি জানান আদিত্য ঠাকরে। তাঁর সঙ্গে শিবসেনার মননীত পরিষদীয় নেতা একনাথ শিন্ডে ও অন্যান্য বিশিষ্ট নেতারাও ছিলেন।