উৎসবের মরসুমেই ঘটল বিপত্তি। রাতারাতি বেড়ে গেল করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। যখন গোটা দেশের বিভিন্ন রাজ্য ও এলাকাতে দিনপিছু আক্রান্তের মাত্রা ছাড়িয়েছিল হাজার, ঠিক সেই সময়ই আহমেদাবাদের সংখ্যা ছিল ১২ থেকে ১৩০। কিন্তু সেই সংখ্যাই এবার লাফিয়ে ২০০-তে পৌঁচ্ছল। মুহূর্তে ব্যবস্থা নিল প্রশাসন। এবার কার্ফু জারির সিদ্ধান্ত নেওয়া হল আহমেদাবাদে। 

মার্চ মাস থেকেই লকডাউনের কঠিন ছবি দেখেছে গোটা বিশ্ব। এমনই পরিস্থিতিতে আবারও আহমেদাবাদে ফিরে আসছে সেই স্মৃতি। যার ফলে বেজায় চিন্তার ভাঁজ সকলের কপালে। শুক্রবার রাত ৯ টা থেকে এখানে জারি করা হবে কার্ফু। চলবে সোমহার ভোর পাঁচটা পর্যন্ত।য অর্থাৎ শনি ও রবিবার দুই ছুটির দিনকেই লক্ষ্য করে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। 

 

 

এই সময় কেবলমাত্র খোলা থাকবে দুধের দোকান ও ওষুধের দোকান। এছাড়া আগামী কাল থেকে টানা দুদিন বন্ধ থাকবে সব কিছুই। এমনটাই নির্দেশ এবার জারি করা হল। ভয়াবহ রূপ নেওয়ার আগেই সতর্ক হতে চায় সেখানকার প্রশাসন। উৎসবের পরই ৩০ শতাংশ বাড়ল আক্রান্তের সংখ্যা, যা নেহাতই কম নয়। তাই তড়িঘড়ি এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হল, জানিয়ে দেওয়া হল ২৪ ঘণ্টা আগেই।