করোনাভাইরাস জনিত মহামারি বর্তমান বিশ্বে আমাদের  স্থিতিস্থাপকতা, স্বাস্থ্য আর অর্থনৈতিক ব্যবস্থাকে পরীক্ষা করে দেখছে। ২০২০ সালে যখন শুরু হয় তখন কি কেউ আমরা ভাবতে পেরেছিলাম যে আমরা এজাতীয় মহামারির মুখোমুখি হব? ইউএস-ইন্ডিয়া স্ট্রাটেজিক পার্টনারশিপ ফোরামের শীর্ষ সম্মেলনে যোগ দিয়ে এমনই মন্তব্য করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। 

তিনি আরও বলেন, ২০২০ সাল শুরু হওয়ার পরই কী ভাবে তা কাটনো হবে তার পরিকল্পনা করা হয়েছিল। কিন্তু সেই পরিকল্পনা বাধা পেয়েছে মরামারির কারণে। তিনি বলেন মরামারির কারণে বেশ কয়কটি জিনিস প্রভাবিত হয়েছে। করোনাভাইরাসের কারণে তৈরি হওয়া পরিস্থিতি ১৩০ কোটি ভারতীয় আশা আকাঙ্খাকে প্রভাবিত করেছে। সাম্প্রতিক মাসগুলিতে বেশ কিছু পরিবর্তন হয়েছে। যার প্রভাব পড়েছে ব্যবসায়েও। 


বর্তমান পরিস্থিতি মোকাবিলায় মানসিকতা পরিবর্তন করতে হবে। উন্নয়নের দিকেই মন দিতে হবে। ইউএসআইপিএসপিএফ-এর তৃতীয় বার্ষিক সম্মেলনে বৃহস্পতিবার মূল বক্তা ছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। এই অনুষ্ঠানে তিনি আরও বলেন করোনাভাইরাসের সঙ্গে সঙ্গে ভারত বন্যা, সাইক্লোনের মত প্রাকৃতিক দুর্যোগের সঙ্গেও লড়াই করছে। পাশাপাশি তিনি বলেন করোনার সঙ্গে লড়াই করার জন্য দেশে স্বাস্থ্য পরিকাঠামোয় পরিবর্তন আনা হয়েছে। আইসিইউ-র ব্যবস্থা বাড়ানো হয়েছে। আর পিপিই কিট তৈরির ওপর জোর দেওয়া হয়েছে। 


এইএসআইএসপিএর একটি অলাভজনক সংস্থা। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও ভারতের সম্পর্ক নিয়ে টানা এক সপ্তাহ ধরেই এই সম্মেলন চলছে। এই সম্মেলনে দুই দেশের শীর্ষ রাজনৈতিক নেতৃত্ব ও কর্পোরেট ব্যক্তিত্বরা অংশগ্রহণ করেছে। সোমবার পররাষ্ট্রমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর এই সম্মেলনে যোগদান করেছিলেন। এই অনুষ্ঠানে অংশ নিয়েছেন নির্মলা সীতারমন ও পীযূষ গোয়েলও।