স্বাস্থ্য মন্ত্রকের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী দেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা ২৫,৮৯,৮৬৮২। গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে আক্রান্ত হয়েছে আরও ৬৩,৪৮৯ জন। ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে মৃত্যু হয়েছে  ৯৪৪ জনের। দেশে এখনও পর্যন্ত করোনা আক্রান্ত হয়ে মৃতের মোট সংখ্যা ৪৯ হাজার ৯৮০ জন। 

স্বাস্থ্য মন্ত্রকের তরফ থেকে দেওয়া তথ্য অনুযায়ী রবিবার দেশে করেনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসাধীন রয়েছেন ৬৭৭৪৪৪ জন। এখনও পর্যন্ত ১৮ লক্ষেরও বেশি মানুষ সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরতে পেরেছেন। কেন্দ্রীয় সরকারের দাবি দেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা বাড়লেও মৃত্যুর হার অনেকটাই কম। 


এখনও পর্যন্ত আক্রান্তের সংথ্যায় প্রথম স্থানে রয়েছে মহারাষ্ট্র। আক্রান্তের সংখ্যা ৫ লক্ষেরেও বেশি। এই রাজ্যের এখনও পর্যন্ত মৃত্যু হয়েছে ১৯ হাজারেরও বেশি মানুষের। দ্বিতীয়, তৃতীয় ও চতুর্থ স্থানে রয়েছে দক্ষিণের তিন রাজ্য। তামিলনাড়ুতে আক্রান্ত হয়েছে ৩ লক্ষের বেশই মানুষ। অন্ধ্র প্রদেশ ও কর্ণাটকে আক্রান্তের সংখ্যা ২ লক্ষের  বেশি। এই দুটি রাজ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় ৮ হাজারেরও বেশি মানুষ আক্রান্ত হয়েছেন। পঞ্চম স্থানে দিল্লি, ষষ্ঠ স্থানে উত্তর প্রদেশ আর সপ্তম স্থানে রয়ছে পশ্চিমবঙ্গ। স্বাস্থ্য মন্ত্রকের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী  এই রাজ্যে আক্রান্তের সংখ্যা ১,১৩,৪৩২ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ২৩৭৭ জন। ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু হয়েছে ৫৮ জনের। 


বিশ্বের করোনা আক্রান্ত দেশগুলির মধ্যে ভারত রয়েছে তৃতীয় স্থানে। প্রথম স্থানে এখনও পর্যন্ত রয়এছে আমেরিকা। আর ৩৩ লক্ষ আক্রান্তের সংখ্যা নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে ব্রাজিল। মহামারি মোকাবিলায় বর্তমানে নমুনা পরীক্ষার ওপর জোর দেওয়া হয়েছে।  ইন্ডিয়ান মেডিক্যাল কাউন্সিলের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী ১৫ অগাস্ট পর্যন্ত ২ কোটি ৯৩ লক্ষেরও বেশই মানুষের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। শুধুমাত্র ১৫ অগাস্টই সাড়ে সাত লক্ষের কাছাকাছি নমুনা পরীক্ষা হয়েছে।