গত এক বছর ধরে করোনাভাইরাসের সঙ্গে লড়াই করে চলেছে দেশ। গত ১৬ জানুয়ারি থেকে শুরু হয়েছে টিকাকরণ। সোমবার থেকে দ্বিতীয় টিকাকরণের জন্য দরজা খুলে দিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার। এই অবস্থায় রীতিমত আশঙ্কার কথা শুনিয়েছেন কেন্দ্রীয় গবেষণা সংস্থা কাউন্সিল অব সায়েন্টিফিক অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিয়াল রিসার্চ বা  CSIR। রবিবার সংস্থার পক্ষ থেকে জানন হয়েছে করোনাভাইরাসের তৃতীয় ঢেউ আরও ভয়ঙ্কর হতে রূপ নিয়ে আছড়ে পড়তে পারে দেশে। করোনার নিয়মবিধিতে শিথিলতা দেখানে পরিস্থিতি আরও ভয়াবহ হতে পারে বলেও আশঙ্কা করা হয়েছে। 

রবিবার জাতীয় বিজ্ঞান দিবস উপলক্ষ্যে তিরুবন্তপুরমে রাজীব গান্ধী সেন্টার ফর বায়োটেকনোলজি আয়োজিত একটি ভার্চুয়াল সম্মেলনে সিএসআইআর এর ডিরেক্টর জেনারেল শেখর সি মান্দে দেশের করোনাভাইরাস পরিস্থিতি নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করেন। সেখানেই তিনি বলেন দেশের আম জনতা থেকে শুরু করে বিজ্ঞানৈক মহল করোনাভাইরাস নিয়ে যদি গাফিলতি করে তাহলে তার পরিণতি হতে পারে ভয়ঙ্কর। করোনা সংকট কাটাতে গবেষণা সংস্থাগুলিকে নিজেদের মধ্যে আলোচনা করে কাজ করতে পারে। 

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রুখতে বেশ কয়েকটি ভ্যাকসিন ইতিমধ্যেই চালু করা হয়েছে। তবে এখনও পর্যন্ত তেমন শক্তিশালী কোনও প্রমাণ পাওয়া যায়নি যে সেগুলি নতুন রূপককে আটকাতে সক্ষম হবে। তিনি আরও বলেন ভ্যাকসিনগুলি করোনাভাইরাসে বিরুদ্ধ কার্যকর হবে বলেও এখনও পর্যন্ত সকলেই আশা করছে। তিনি আরও বলেন ভাইরাসের একটি অংশ পরিবর্তন হয়েছে। তাই আশা করা যাতেই পারে যে সেগুলি কার্যকর হবে। তিনি আরও বলেন শীতকালে করোনার সংক্রমণ কমেছিল নিয়ম মেনে চলা, মাস্কের ব্যবহার করা ও বাড়িতে থাকার কারণে। তিনি আরও বলেছেন ভারত এখনও পর্যন্ত হার্ড ইমিউনিটির ধারেকাছে পৌঁছায়নি। তাই জন্য সংক্রমণ রুখতে করোনার গাইডলাইন মেনে চলা অত্যান্ত জরুরি বলেও জানিয়েছেন তিনি।