অবশেষে ৫ লক্ষের গণ্ডি পেরিয়ে গেল দেশে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। শুক্রবার দেশে দৈনিক করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ১৭ হাজার ছাড়িয়েছিল। শনিবার সেই রেকর্ডও ভেঙে চুরমার হয়ে গেল। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে সংক্রমণের শিকার হয়েছেন ১৮,৫৫২ জন। ফলে ভারতে বর্তমানে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৫ লক্ষ ৮ হাজার ৯৫৩। চার থেকে পাঁচ লাখে পৌঁছতে লাগল মাত্র ৬ দিন। 

 

স্বাস্থ্যমন্ত্রকের পরিসংখ্যান বলছে গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে মারণ ভাইরাস প্রাণ কেড়েছে ৩৮৪ জনের। ফলে ভারতে কোভিড ১৯ রোগে এখনও পর্যন্ত মৃত্যু হয়েছে ১৫,৬৮৫ জন। ইন্ডিয়ান কাউন্সিল অব মেডিক্যাল রিসার্চ বলছে, দেশে ২৬ জুন পর্যন্ত মোট করোনা পরীক্ষা হয়েছে ৭৯ লক্ষ ৯৬ হাজার ৭০৭। আর গত ২৪ ঘণ্টায় কোভিড ১৯ নমুনা পরীক্ষা হয়েছে ২ লক্ষ ২০ হাজার ৪৭৯। 

 

তবে ভাল খবর দেশে করোনা থেকে সুস্থ হয়ে ওঠা  মানুষের সংখ্যা প্রায় ৩ লক্ষের কাছাকাছি পৌঁছে গেছে। সরকারি মতে পরিসংখ্যানটা ২ লক্ষ ৯৫ হাজার ৮৮১। ফলে দেশে এখন সক্রিয় আক্রান্তের সংখ্যা ১ লক্ষ ৯৭ হাজার ৩৮৭। দেশে সুস্থতার হার বেড়ে হয়েছে ৫৮.১৩ শতাংশ।

আরও পড়ুন: পাকিস্তানের ভিসা পেয়েই কাশ্মীর থেকে নিখোঁজ একের পর এক যুবক, বড়সড় ষড়যন্ত্রের আশঙ্কা

এদিকে দেশে করোনা সংক্রমণে এখনও এক নম্বরে রয়েছে মহারাষ্ট্র। মারাঠা রাজ্যে আক্রান্তের সংখ্যা ১ লক্ষ ৫২ হাজার ছাড়িয়ে গিয়েছে। মহারাষ্ট্রে করোনা এখনও পর্যন্ত প্রাণ কেড়েঠে ৭,১০৬ জনের। তবে রাজ্যে ইতিমধ্যে সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৭৯ হাজারের বেশি মানুষ।

জাতীয় রাজধানী দিল্লিতে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ৭৭ হাজার ছাড়িয়েছে। মারণ ভাইরাস প্রাণ কেড়েছে ২,৪৯২ জনের। তবে ইতিমধ্যে সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৪৭,০৯১ জন। তবে দিল্লির পরিস্থিতি পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণে বলেই দাবি করছেন মুখ্যমন্ত্রী কেজরিওয়াল।

আরও পড়ুন: লাদাখ সংঘাত ঘিরে তৃতীয় বিশ্বযুদ্ধের সম্ভাবনা প্রবল হচ্ছে, নিয়ন্ত্রণরেখা নিয়ে ফের হুঁশিয়ারি দিল্লির

করোনা সংক্রমণে দেশের মধ্যে তৃতীয় স্থানে রয়েছে তামিলনাড়ু। রাজ্যটিতে আক্রান্তের সংখ্যা ৭৪ হাজার ছাড়িয়েছে। মৃত্যু হয়েছে ৯৫৭ জনের। সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৪১ হাজারের বেশি মানুষ।

গোটা বিশ্বে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ৯৪ লক্ষের বেশি। মারণ এই ভাইরাসে এখনও পর্যন্ত বিশ্বে মৃত্যু হয়েছে ৪ লক্ষ ৮০ হাজারেরও বেশি মানুষের। গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা আক্রান্ত হয়েছেন বিশ্বের ১ লক্ষ ৭৭ হাজার মানুষ। জানাচ্ছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। মৃত্যু হয়েছে ৫ হাজারেরও বেশি মানুষের।