চুরি, ছিনতাই, রাহাজানিতে অভিযুক্ত দোষীদের আদালতে পেশ করতেই হয় পুলিশকে। জমি, বাড়ি সংক্রান্ত মামলাতেও আদালতের চক্কর খেতে হয় বহু মানুষকে। তা বলে আস্ত একটি গরুকে আদালতে, হাজিরা দিতে হল, এমন নজির এ দেশে আছে কি না, তা বলা মুশকিল। বাস্তবে অবশ্য এমনটাই হল রাজস্থানের যোধপুরের একটি স্থানীয় আদালতে। যা দেখে তাজ্জব হয়ে যান আদালতে উপস্থিত আইনজীবী থেকে আমজনতা। 

মালিকানা কার, তা ঠিক করতেই আসলে আদালতে নিয়ে আসা হয়েছিল গরুটিকে। বিবাদমান দুই পক্ষের বক্তব্য শোনার পরে শেষ পর্যন্ত ওম প্রকাশ নামে এক ব্যক্তিকেই গরুর মালিক বলে জানিয়ে দিয়েছে আদালত।

ওম প্রকাশ এবং শ্যাম সিং নামে দুই ব্যক্তির মধ্যে ওই গরুটিকে ২০১৮ সাল থেকে ঝামেলা চলছিল। দু' জনেরই দাবি ছিল, গরুটি তাঁর। শেষ পর্যন্ত অবশ্য আদালত শ্যাম সিংহের দাবি খারিজ করে দিয়েছে। তার আগে অবশ্য ছোট একটি গাড়িতে চাপিয়ে গরুটিকে আদালতে নিয়ে আসা হয়েছিল। যা দেখতে রীতিমতো ভিড় জমে যায়। গোটা বিষয়টি জানার পরে এর পর এজলাসেও বেশ ভিড় জমে যায়। গরুর মালিকানা শেষ পর্যন্ত কে পান, তা নিয়েই জোর কৌতূহল তৈরি হয়। 

পরে ওম প্রকাশের আইনজীবী জানান, 'সমস্ত সাক্ষীদের বক্তব্য শোনার পরে এবং প্রমাণ খতিয়ে দেখার পরে ওম প্রকাশকেই গরুর আসল মালিক বলে রায় দিয়েছে আদালত।'

তবে প্রাণীদের নিয়ে আইনি টানাপোড়েন অবশ্য আগেও হয়েছে। পুণেতেও এক মহিলা এর আগে প্রতিবেশীর মুরগির ডাকে বিরক্ত হয়ে মুরগিটির বিরুদ্ধেই থানায় অভিযোগ জানিয়েছিলেন।