Asianet News BanglaAsianet News Bangla

কে কে শৈলজাকে রামন ম্যাগসাসে সম্মান নিতে বারণ, ফের ঐতিহাসিক ভুলের সামনে সিপিএম

জানা গেছে যে রামন ম্যাগসেসে অ্যাওয়ার্ড ফাউন্ডেশন জনস্বার্থে তৈরি করা স্বাস্থ্য ব্যবস্থা প্রচলন করার জন্য এবং কার্যকরভাবে রাজ্যে নিপাহ এবং কোভিড -১৯ প্রাদুর্ভাব পরিচালনার জন্য বেছে নিয়েছে শৈলজাকে। কেকে শৈলজা এই দুটি ক্ষেত্রে অসামান্য কৃতিত্ব দেখিয়েছেন বলে আখ্যা দিয়ে ৬৪ তম ম্যাগসাসে পুরস্কারের জন্য শৈলজাকে বেছে নেয় ফাউন্ডেশন। 

CPM scuttled the chance of KK Shailaja winning the prestigious Ramon Magsaysay Award for 2022 bpsb
Author
First Published Sep 4, 2022, 1:43 PM IST

দুই দশক আগে প্রবীণ নেতা জ্যোতি বসুর জন্য প্রধানমন্ত্রীর পদে সায় দেয়নি সিপিএম। এবার ফের আরেকবার সিপিএম তার দ্বিতীয় "ঐতিহাসিক ভুল" করার সামনে দাঁড়িয়ে। প্রমাণিত, যে অতীত থেকে কোনও শিক্ষাই নেয়নি এই দল। কেরলের প্রাক্তন স্বাস্থ্যমন্ত্রী এবং বর্ষীয়ান সিপিএম নেতা কে কে শৈলজার নাম ঘোষিত হয়েছে মর্যাদাপূর্ণ রামন ম্যাগসাসে পুরস্কার ২০২২-এর জন্য। সেই সুযোগকেও হাতছাড়া করল সিপিএম। শৈলজা এই সম্মান নেবেন না বলে দলের তরফে জানানো হয়েছে। 

জানা গেছে যে রামন ম্যাগসেসে অ্যাওয়ার্ড ফাউন্ডেশন জনস্বার্থে তৈরি করা স্বাস্থ্য ব্যবস্থা প্রচলন করার জন্য এবং কার্যকরভাবে রাজ্যে নিপাহ এবং কোভিড -১৯ প্রাদুর্ভাব পরিচালনার জন্য বেছে নিয়েছে শৈলজাকে। কেকে শৈলজা এই দুটি ক্ষেত্রে অসামান্য কৃতিত্ব দেখিয়েছেন বলে আখ্যা দিয়ে ৬৪ তম ম্যাগসাসে পুরস্কারের জন্য শৈলজাকে বেছে নেয় ফাউন্ডেশন। কিন্তু সেই সম্মানের পথে বাধা হয়ে দাঁড়িয়েছে দল। উল্লেখ্য, কেরালা শৈলজার ক্ষমতায় থাকাকালীন নিপাহ প্রাদুর্ভাব এবং কোভিড মহামারীকে কার্যকরভাবে পরিচালনার জন্য বিশ্বব্যাপী স্বীকৃতি অর্জন করেছিল।

কেকে শৈলজার কৃতিত্ব বিভিন্ন জাতীয় এবং আন্তর্জাতিক মিডিয়ায় বিশেষভাবে তুলে ধরা হয়। সেখানে দেখানো হয় যে ভারতের দক্ষিণ প্রান্তে একটি ছোট রাজ্য কীভাবে বৈজ্ঞানিক পদ্ধতিতে মহামারীর বিরুদ্ধে লড়াই করছে। চলতি বছরের আগস্টের শেষ নাগাদ এ পুরস্কারের প্রকাশ্য ঘোষণা হওয়ার কথা ছিল। তাকে মনোনীত করার পর ফাউন্ডেশনটি দেশের কয়েকজন বিশিষ্ট স্বতন্ত্র ব্যক্তির সাথে আলোচনাও করে। 

নয়াদিল্লির সরকারি সূত্র জানাচ্ছে যে অ্যাওয়ার্ড ফাউন্ডেশনটি প্রথমে শৈলজার সাথে একটি অনলাইন সাক্ষাতকার করে। এরপরে জুলাইয়ের শেষের দিকে তাকে পুরস্কারের বিষয়ে অবহিত করা হয়। প্রাক্তন মন্ত্রীর কাছে তার ই-মেইলে, তাকে আন্তর্জাতিক সম্মানের জন্য নির্বাচিত হওয়ার বিষয়ে অবহিত করা হয়। ফাউন্ডেশন তাকে লিখিতভাবে পুরস্কার গ্রহণের জন্য তার মত প্রকাশ করতে বলে। ফাউন্ডেশন সেপ্টেম্বর থেকে নভেম্বর ২০২২ পর্যন্ত অন্যান্য পুরস্কার সম্পর্কিত একটি সূচিও নির্ধারণ করেছিল।

জানা গেছে যে শৈলজা, সিপিএমের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য হওয়ায়, দলের নেতৃত্বের সাথে এটি সম্পর্কে পরামর্শ ও আলোচনা করেছিলেন। সিপিএম নেতৃত্ব পুরষ্কারের বিভিন্ন দিক খতিয়ে দেখে। দেখেছিল এবং তার এটি গ্রহণের বিরুদ্ধে সিদ্ধান্ত নিয়েছে। দলের মনে হয়েছে, স্বাস্থ্যমন্ত্রী হিসেবে শৈলজা তাঁর উপর অর্পিত দায়িত্ব পালন করছেন। এছাড়াও, নিপাহ প্রাদুর্ভাব এবং কোভিড মহামারীর বিরুদ্ধে লড়াইয়ে রাষ্ট্রের প্রচেষ্টা ছিল একটি সম্মিলিত আন্দোলনের অংশ এবং তাই তাকে তার ব্যক্তিগত ক্ষমতায় পুরস্কার গ্রহণ করার প্রয়োজন নেই।

এর পরিপ্রেক্ষিতে শৈলজা পুরস্কার গ্রহণে অপারগতা প্রকাশ করে ফাউন্ডেশনকে চিঠি দেন। এটাও জানা গেছে যে পার্টি তার পুরস্কার গ্রহণের বিরুদ্ধে সিদ্ধান্ত নিয়েছে কারণ এটি ম্যাগসাসেয়ের নামে দেওয়া হয় যিনি কমিউনিস্ট গেরিলাদের খতম করার জন্য পরিচিত ছিলেন। সিপিএম মনে করেছিল যে এই ধরনের পুরস্কার গ্রহণ করা দীর্ঘমেয়াদে বুমেরাং হবে।

যদিও সিপিএম সাধারণ সম্পাদক সীতারাম ইয়েচুরির প্রতিক্রিয়া এই বিষয়ে পাওয়া যায়নি। অন্যদিকে, শৈলজাও পুরস্কারের বিষয়ে প্রশ্নের উত্তর দিতে অস্বীকার করেন। রামন ম্যাগসাসে পুরস্কার, এশিয়ার নোবেল পুরস্কার হিসেবে পরিচিত। এটি একটি মর্যাদাপূর্ণ আন্তর্জাতিক সম্মান, যা ফিলিপাইনের প্রয়াত রাষ্ট্রপতির নামে নামকরণ করা হয়েছে। শৈলজা যদি এই সম্মান নিতেন, তবে তিনি ম্যাগসাসে গ্রহণকারী প্রথম কেরালাইট মহিলা হতেন। 

Follow Us:
Download App:
  • android
  • ios