মৌসম ভবন জানিয়েছিল আজ দুপুর ১টা থেকে ৩টের মধ্যে ঘণ্টায় সর্বোচ্চ ১২০ কিলোমিটার বেগে আছড়ে পড়তে পারে অতি শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড় নিসর্গ। সেই মতই মহারাষ্ট্র উপকূলে বেলা সাড়ে বারোটা নাগাদ আছড়ে পড়ল শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড় নিসর্গ। 

 

আশঙ্কা বাড়িয়ে আগেই অতি শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হয়েছিল নিসর্গ। কোঙ্কন ও মুম্বই উপকূলে সকাল থেকেই ক্রমশ বাড়ছিল ঝড়ের গতি। বৃষ্টি চলছিল দাদার, মাতুঙ্গা, সিওন, ওয়াডালা, পারেল এলাকায়। আবহাওয়া দফতরের পূর্বাভাস অনুযায়ী মহারাষ্ট্রের রায়গড় জেলার আলিবাগেই আছড়ে পড়ে নিসর্গ। এদিকে ঘূর্ণিঝড়ে দাপটে ঝড়ের সঙ্গে প্রবল বর্ষণ শুরু হয় বাণিজ্য নগরী মুম্বইতে। 

 

 

এদিকে ঘূর্ণিঝড়ের কারণে সতর্কতামূলক ব্যবস্থা হিসাবে মুম্বই উপকূলবর্তী এলাকা থেকে প্রায় এক লক্ষ মানুষকে নিরাপদ জায়গায় সরিয়ে আনা হয়েছে। এদের মধ্যে কয়েকজন করোনা আক্রান্ত। শুধুমাত্র মহারাষ্ট্রেই এনডিআরএফ-এর ২১টি দল মোতায়েন করা হয়েছে।  মুম্বইয়ে মোতায়েন রয়েছে ৮টি দল।

 

মৌসম ভবন জানিয়েছে, অন্তত ৩ ঘণ্টা ধরে মহারাষ্ট্র উপকূলে তাণ্ডব চালাবে এই ঘূর্ণিঝড়। তারপর মূল ভূখণ্ডে ডুকে তা যাবে নাগপুরের অভিমুখে।

 

 

মুম্বই ও পার্শ্ববর্তী এলাকায় মঙ্গলবার থেকেই ঝড়-বৃষ্টি চলছিল। ঘূর্ণিঝড় নিসর্গ আছড়ে পড়তেই ঝড়ের গতি আরও বেড়ে যায়। মহারাষ্ট্রের পাশাপাশি গোয়াতেও এই সুপার সাইক্লোনের কারণে প্রবল বৃষ্টি চলছে।