সালটা ১৯৯৮। দিল্লি সেবার পেয়েছিল এক মহিলা মুখ্যমন্ত্রী। তাঁর নাম ছিল সুষমা স্বরাজ। কিন্তু সে সময় পেঁয়াজের আকাশছোঁয়া মূল্যবৃদ্ধিতে তোলপাড় হয়ে যায় দিল্লির রাজনীতি। পদত্যাগ করতে বাধ্য হন সুষমা। এরপর আর তিনি বিধানসভা ভিত্তিক নির্বাচনে প্রার্থী হননি। সংসদীয় রাজনীতিতেই নিজের চৌহদ্দিকে আটকে রেখেছিলেন তিনি। তবু, দিল্লির স্বল্প সময়ের মুখ্যমন্ত্রী সুষমা স্বরাজ-কে খেয়াল রেখেছে দিল্লিবাসী। 

যার জন্য মঙ্গলবার রাতে সুষমা স্বরাজের প্রয়াণের খবর দিল্লিবাসী-কে শোকস্তব্ধ করে তোলে। দিল্লি সরকার সুষমার প্রয়াণে তাই ২ দিনের রাষ্ট্রীয় শোকের ঘোষণা করে। মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল জানিয়েছেন, এই দুই দিন দিল্লি-তে রাষ্ট্রীয় পতাকা অর্ধনমিত থাকবে। এই দুদিন কোনওরকম রাজনৈতিক অনুষ্ঠান হবে না বলে সরকার জানিয়েছে। তবে দুদিনের এই রাষ্ট্রীয় শোক শুধু দিল্লি সরকারের আওতাধীন এলাকাতেই পালিত হবে। অন্যান্য সমস্ত সরকারি ব্যাবসা সংক্রান্ত কাজকর্ম ও অনুষ্ঠান স্বাভাবিক ভাবেই চলবে বলে জানানো দিল্লি সরকারের বিজ্ঞপ্তিতে। 

মঙ্গলবার রাতে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে প্রয়াত হন সুষমা স্বরাজ। তাঁর এই আকষ্মিক প্রয়াণে শোকস্তব্ধ দেশ। সোশ্যাল মিডিয়ায় ওঠে শোকপ্রকাশের ঝড়। তাঁর এই অকাল প্রয়ানে দেশ থেকে শুরু করে রাজ্যের রাজনীতি মহলে নেমেছে শোকের ছায়া। সবার বয়ানেই বার বার উঠে এসেছে সুষমা-র কথা। সেইসঙ্গে এইসব টুইটে জানানো হয়েছে, একজন ভাল দলনেত্রী ও বিশিষ্ট রাজনীতিবিদকে হারালো ভারত।