আবারও রীতিমত ধাক্কা খেলেন পলাতক হীরা ব্যবসায়ী মেহুল চোকসি। নেটফ্লিক্সের ওয়েবসিরিজের 'ব্যাড বয় বিলিয়নার'এর বিরুদ্ধে দিল্লি আদালতের দ্বারস্থ হয়েছিলেন তিনি। আইনজীবী মারফত তিনি আবেদন জানিয়েছিলেন ওয়েব সিরিজটি রিলিজে হওয়ার আগে তাঁকে দেখাতে হবে। 


শুক্রবার প্রায় দূঘণ্টা শুনানির পর মেহুল চোকসির আবেদন খারিজ করে দিয়েছে দিল্লির আদালত। তবে মেহুল চোকসি যদি চান তাহলে নাগরিক মামলা দায়ের করতে পারেন বলেও জানিয়েছেন বিচারপতি। পাশাপাশি বিচারপতি জানিয়েছেন,  ব্যক্তিগত কারণে রিট পিটিশন দাখিল করা উপযুক্ত নয়। তাই চাইলে নাগরিক মামলা দায়ের করতে পারেন বলেও মন্তব্য করেছে আদালত।  

আগামী ২ সেপ্টেম্বর নেটফ্লিক্সে রিলিজ করবে 'ব্যাড বয় বিলিয়নার'। নেটফ্লিক্সের আইনজাবীরা জানিয়েছেন প্রিস্ক্রিনিংএর জন্য মেহুল চোকসির আবেদন সম্পূর্ণ ভুল আর উদ্দেশ্যপ্রনোদিত। সাওয়ালের সময় নেটফ্লিক্সের পক্ষ থেকে বলা হয়েছিল মেহুল চোকসি একজন ঘোষিত পলাতক। আর তাঁর প্রিস্ক্রিনিংএর আবেদনে অনুমতি দেওয়ার অর্থই হল বাক-স্বাধীনতায় হস্তক্ষেপ করা। 

পাল্টা চোকসির আইনজীবী জানিয়েছেন, আর মক্কেলের ন্যায় বিচারের অধিকার রয়েছে। তথ্যচিত্রটি সম্প্রচার হলে তা বাধা পেতে পারে বলেও আশঙ্কা করেছেন তিনি। শুনানি চলাকালীন তাঁর মক্কেলকে পলাতল বলা হয়েছে বলেও প্রতিবাদ জানিয়েছেন চোকসির আইনজীবী। 

নেটফ্লিক্সের তথ্যচিত্রটিতে ভারতের হাইপ্রোফাইল বিজনেজ টাইকুনদের জালিয়াতির বিষয়ে আলোতপাত করা হয়েছে। প্রকাশিত পোস্টারে মেহুল চোকসি, তার ভাগ্নে নীরব মোদী, সাহারা গ্রুপের প্রধান সুব্রত রায়, সত্যম কম্পিউটার সার্ভিসের প্রাক্তন চেয়ারপার্সেন ও সিইও রামলিঙ্গ রাজুকে দেখানো হয়েছে।