অন্যের বাড়ির দেওয়াল শৌচাগার নয়। অনেকে বাড়ির দেওয়ালে গোটা গোটা অক্ষরে সে কথা লিখেও রাখেন। তবু ধৈর্যচ্যুতি হয়। বিরক্ত হন সাধারণ মানুষ। কিন্তু প্রতিবাদের এত বড় শাস্তি! অন্যায়ের বিরুদ্ধে দাঁড়ানোর মাশুল দিতে হবে তা সত্যিই বোঝেনি ২৬ বছর বয়েসি যুবক। নৃশংসতার নজির গড়ল রাজধানী দিল্লি।

ঘটনার সূত্রপাত গত সোমবার। এদিন দিল্লির দক্ষিণ পূর্বে গোবিন্দপুর এলাকায় এক প্রৌঢ় দেওয়ালে প্রস্রাব করছিল লিলু বলে এক যুবকের বাড়ির সামনে। মৌখিক বাধাদানে কাজ হওয়ায়, ওই প্রৌঢ়কে চড় কষায় লিলু। 

এই চড়ের বদলা নিতেই মান সিংহ নাম্নী ওই প্রৌঢ়ের দুই ছেলে রবি ও নীলকমল  সিমেন্টের স্ল্যাব দিয়ে আঘাত করে লিলুকে। ঘটনাস্থলেই অচৈতন্য হয়ে পড়ে লিলু।  তাকে তড়িঘড়ি এইমসের ট্রমা সেন্টাররে নিয়ে যাওয়া হলে চিকিৎসকেরা তাঁকে মৃত বলে ঘোষণা করে।

লিলুর দাদা সঞ্জয় গোটা ঘটনার কথা জানান দক্ষিণ পূর্ব দিল্লি থানার ডেপুটি কমিশনার চিন্ময় বিসওয়ালকে। প্রসঙ্গত লিলুর নামেও নানা সামাজিক দুস্কর্মে জড়িত থাকার অভিযোগ ছিল। এ যাবৎ ১৭ টি সামাজিক অপরাধে অভিযুক্ত ছিল সে। 

ডেপুটি কমিশনার চিন্ময় বিসওয়াল জানিয়েছেন, আমরা মূল অভিযুক্তকে ইতিমধ্য চিহ্নিত করেছি। সে নিজেও আহত। খুব শিগগির তাকে গ্রেফতার করতে পারব বলে আশা রাখছি।