হায়দ্রাবাদে তরুণী পশু চিকিৎসককে গণধর্ষণ এবং পুড়িয়ে হত্যার প্রতি়বাদের রেশ এবার পৌঁছে গেল দিল্লিতেও। সংসদ ভবনের গেটে একা বিক্ষোভ দেখাতে গিয়ে পুলিশের বাধার মুখে পড়লেন এক তরুণী। প্রতিবাদী ওই যুবতীকে থানায় তুলে নিয়ে গিয়ে পুলিশ হাতে সেফটি পিন ঢুকিয়ে দেয় বলেও অভিযোগ। এই ঘটনার প্রতিবাদে দিল্লি পুলিশকে পাল্টা নোটিশ পাঠিয়েছে দিল্লির মহিলা কমিশন। 

হায়দ্রবাদে তরুণীর উপরে নির্যাতনের এবং খুনের ঘটনার প্রতিবাদে এ দিন সকালে সংসদ ভবনের গেটের সামনে প্ল্যাকার্ড হাতে বসে পড়েন অনু দুবে নামে এক তরুণী। তাঁর সঙ্গে অবশ্য অন্য কেউ ছিলেন না। নারীদের সুরক্ষার দাবি জানিয়ে এবং হায়দরাবাদের ঘটনার সুবিচার চেয়ে শান্তিপূর্ণ অবস্থানে বসেন তিনি। তাঁর আগে অনু বলেন, 'কাউকে না কাউকে তো এটা শুরু করতেই হতো। অন্য কারও জন্য জীবনে প্রথমবার এরকম কিছু করতে যাচ্ছি। জানিনা কী হবে, শুধু একটাই অনুরোধ আমার পরিবারের যেন কোনও ক্ষতি করা না হয়।'
ওই তরুণী সংসদ ভবনের গেটের সামনে ধর্নায় বসার পরই সেখানে হাজির হয় দিল্লি পুলিশের একটি দল। প্রথমে ওই তরুণীকে উঠে যন্তর মন্তরে গিয়ে বসার জন্য অনুরোধ করেন তারা। কিন্তু তরুণী রাজি না হওয়ায় জোর করে তাঁকে মহিলা পুলিশ দিয়ে পার্লামেন্ট স্ট্রিট থানায় তুলে নিয়ে যাওয়া হয়। 

আরও পড়ুন- মেয়ের মতোই পুড়িয়ে মারা হোক ধর্ষকদের, দাবি হায়দরাবাদের নির্যাতিতার মায়ের

বেশ কিছুক্ষণ সেখানে আটকে রাখার পরে ওই তরুণীকে ছাড়া হয়। বেরিয়ে এসে তরুণী অভিযোগ করেন, থানায় তাঁর উপরে রীতিমতো নির্যাতন চালানো হয়েছে। তাঁর হাতে সেফটি পিন ঢুকিয়ে অত্যাচার করা হয় বলেও অভিযোগ করেন অনু দুবে নামে ওই তরুণী। 

এই ঘটনার কথা জানাজানি হতেই পাল্টা বিক্ষোভ শুরু হয় রাজধানীতে। ওই তরুণীর সঙ্গে দেখা করেন দিল্লি মহিলা কমিশনের সদস্যরা। বিকেলেই দিল্লি পুলিশকে নোটিশ পাঠিয়ে মহিলা কমিশনের তরফে অভিযুক্ত তিন মহিলা পুলিশকর্মীর বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করতে বলা হয়। একই সঙ্গে তিন পুলিশকর্মীকে সাসপেন্ড করারও দাবি জানায় মহিলা কমিশন। এ বিষয়ে এখনও দিল্লি পুলিশের কোনও প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি।