যোগাযোগের জন্য নেই সড়কপথ, তাই প্রসূতিকে জেলিংগাঢোড়া নদীর ওপর দিয়ে প্রায় ১২ কিলোমিটার পথ পায়ে হেঁটেই নিয়ে নিয়ে যাওয়া হল। ঘটনাটি ঘটেছে ওড়িশার কালাহান্ডি জেলার থামল রামপুর গ্রামে। 

গ্রামের এক প্রসূতি বছর তেইশের সইবানি গৌড়-এর আচমকাই প্রসব যন্ত্রণা ওঠে বলে জানা গিয়েছে। পরিস্থিতি এতটাই জটিল হয়ে যায় যে, তাঁর অবিলম্বেই চিকিৎসার প্রয়োজন পড়ে। সঙ্গে সঙ্গে স্থানীয় এক স্বাস্থ্যকর্মী স্থানীয় এক স্বাস্থ্যকেন্দ্রে অ্যাম্বুলেন্স চেয়ে পাঠানোর ব্যবস্থা করলেও, রাস্তার অবস্থা এতটাই খারাপ এবং ওই নদীর ওপর কোনও সেতু না থাকায় কোনও অ্যাম্বুলেন্স পাঠানো সম্ভব হয়নি। 

 

আর সেই কারণেই গ্রামেরই বাসিন্দাদের কাঁধে চেপে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হল প্রসূতিকে। রীতিমতো পায়ে হেঁটে নদীপথে প্রায় ১২ কিলোমিটার পথ অতিক্রম করে তাঁকে হাসপাতালে নিয়ে গেলেন গ্রামবাসীরা। ওড়িশার কালাহান্ডি জেলার একটি অত্যন্ত অবহেলিত এলাকা হল এই থামল রামপুর গ্রাম। মূলত আদিবাসী অধ্যুষিত এই গ্রামে উন্নয়নের কোনও চিহ্নই চোখে পড়ে না। প্রত্যেক বছর বর্ষার সময়ে এই গ্রামে র রাস্তাঘাট একেবারে হাঁটাচলার উপযুক্ত থাকে না। 

আরও পড়ুন- আবারও চেনা ছন্দে বায়ুসেনার উইং কমান্ডার অভিনন্দন বর্তমান, ফিরলেন ফাইটার ককপিটে

এলাকাবাসীদের অভিযোগ, ভোটের আগে রাজনৈতিক নেতারা প্রতিশ্রুতি দেন যে, ওই নদীর ওপর সেতু নির্মাণ করে দেওয়া হবে, কিন্তু সেই প্রতিশ্রুতি রয়েই গিয়েছে, তার আর বাস্তবে রূপদান করা হয়নি। যার ফলে প্রত্যেক বছর চরম ভোগান্তির শিকার হতে হয় এখানকার সাধারণ মানুষদের।