জন্ম ও কর্ম সূত্রে তিনি হিন্দু। আর সেই কারণেই কংগ্রেস ছেড়ে শিবসেনায় যোগ দান করেছেন। জানিয়েছেন অভিনেত্রী রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব উর্মিলা মাতন্ডকর। গতকালই শিবসেনা প্রধান উদ্ধব ঠাকরের বাড়িতে গিয়ে সেনার খাতা নাম লিখিয়ে এসেছিলেন। গতবছর লোকসভা নির্বাচনের আগে উর্মিলা কংগ্রেসে যোগদান করেছিলেন। নির্বাচনে প্রার্থীও হয়েছিলেন তিনি। কিন্তু সেই সময় তাঁর ভাগ্যে শিঁকে ছেঁড়েনি। তবে কংগ্রেস তাঁকে মাহারাষ্ট্র বিধানসভায় বিধানপরিষেদের মাধ্যমে তাঁকে আসন দেওয়ার প্রস্তাবও দিয়েছিল কংগ্রেস। কিন্তু তাও তিনি ফিরিয়ে দিয়েছেন। কী কারণে তাঁর এই সিদ্ধান্ত তাও খোসলা করে জানিয়েছিলেন, রঙিলা গার্ল। 

উর্মিলা মাতন্ডকর জানিয়েছেন, তিনি হিন্দুত্বে বিশ্বাসী। জন্মসূত্রে তিনি যেমন হিন্দু। কর্মসূত্রেও তিনি বাঁধা পড়েছেন হিন্দুত্বের সঙ্গে। নিজেকে হিন্দু বলতে তাঁর কোনও দ্বিধা নেই। পাশাপাশি তিনি জানিয়েছেন, নিজের ধর্মকে অবহেলা করে অন্যের ধর্মকে শ্রদ্ধা করার  অর্থ কখনই ধর্মনিরপেক্ষতা নয়। সমস্ত ধর্মের প্রতি শ্রদ্ধাশীল হওয়ার অর্থই হল ধর্মনিরপেক্ষ হওয়া।  তিনি আরও জানিয়েছেন, ছোটবেলা থেকেই তিনি যোগ চর্চা করেন। পাশাপাশি একাধিক ধর্ম সংক্রান্ত বইও পড়েছেন। আর সেই কারণেই তিনি নিজের ধর্মের পাশাপাশি অন্য ধর্মের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তিনি আরও বলেন ধর্ম কখনই দেখানোর জিনিয় নয়। এটি একটি বিশ্বাসের বিষয়। যা তিনি খুঁজে পেয়েছেন শিবসেনার মধ্যে। 

উর্মিলা বলেন, হিন্দুত্বের পাশাপাশি মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরের কাজে তিনি উৎসাহিত হয়েছে। করোনাভাইরাসের সংক্রমণ মোকাবিলা থেকে শুরু করে, নিসর্গ পরিস্থিতি সামাল দেওয়ার পাশাপাশি একাধিক প্রতিকূল পরিস্থিতি পার করে তিনি যেভাবে মহারাষ্ট্রের বাসিন্দাদের পাশে দাঁড়িয়েছেন তা রীতিমত উল্লেখ যোগ্য বলেও মনে করেন তিনি। উর্মিলা বলেন, উদ্ধব ঠাকরে মহারাষ্ট্রের প্রতিটি মানুষকে নিজের পরিবারের সদস্য হিসেবে দেখেন বলেও মন্তব্য করেন তিনি। তবে উর্মিলার কংগ্রেস ছেড়ে বিজেপিতে যোগদানের অনেক আগে থেকেই তাঁর দল ছাড়া নিয়ে গুঞ্জন চলছিল। যা উড়িয়ে দিয়েছিলেন অভিনেত্রী। কিন্তু তারপরেও হাত ছেড়ে শিবসেনায় যোগ দিলেন তিনি।