চিনের সঙ্গে পূর্ব লাদাখ সীমান্ত ক্রমবর্ধমান উত্তেজনার কারণ রীতিমত কড়া পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে স্বারাষ্ট্র মন্ত্রক। সীমান্ত সুরক্ষা নিশ্চিত করতে সক্রিয় করা হচ্ছে নিরাপত্তা বাহিনীকে। সীমান্তবর্তী এলাকায়  ভারতীয় সেনাবাহিনীকে সতর্ক থাকতে নির্দেশ দিয়েছে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক। পূর্ব লাদাখ সীমান্তে ভারত চিন ক্রমবর্ধমান উত্তেজনার কারণেই এই সতর্কতা জারি করা হয়েছে। 

সেনাবাহিনী সূত্রে পাওয়া খবরে জানা গেছে ভারত -চিন, ভারত-নেপাল ও ইন্দো-ভূটান সীমান্তে সুরক্ষা বাহিনীকে সর্বদা সতর্ক থাকতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক সূত্রে জানা গেছে চিন সীমান্তে  ইন্দো টিবেটিয়ান বর্ডার সিকিউরিটি ফোর্স আর সশস্ত্র সীমাবলের জওয়ানদের টহল ও নজরদারী আরও বাড়াতে বলা হয়েছে।একটি সূত্র থেকে পাওয়া খবরে জানা গেছে আইটিবিপিকে উত্তরাখণ্ড, অরুণাচল, হিমাচল লাদাখ আর সিকিম সীমান্তে কড়া নজরদারি চালানোর নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। উত্তরাখণ্ডের ভারত-নেপাল-চিন সীমান্তের কালাপানিতেও সক্রিয় করা হয়েছে। ইতিমধ্যে জম্মু কাশ্মীর ও দিল্লি থেকে এসএসবি জওয়ানদের ভারত-নেপাল সীমান্তে মোতায়েন করা হয়েছে।শুধু যে ভারতই সীমান্তে নজরদারী বাড়াচ্ছে তা নয়। একই পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে চিনও। এক সেনা কর্তার কথায় সীমান্ত নিয়ে আলোচনা চলাকালীন  চিনও প্যাংগংসহ বেশ কয়েকটি এলাকায় সৈন্যদের সক্রিয় করেছে চিন। একই সঙ্গে বাড়ানো হয়েছে জওয়ানের সংখ্যাও।  

সীমান্ত উত্তাপ কমাতে মঙ্গলবার ভারতীয় সীমান্তবর্তী সেনাঘাঁটি চুসুলে আবারও আলোচনায় বসেছে চিনা সেনা। সূত্রের খবর ভারতীয় সেনা কর্তাদের প্যাংগং লেক নিয়ে নিজেদের অবস্থানে অনড় থাকবেন। সেনা সূত্রে খবর চিনা সেনাকর্তাদের সঙ্গে আলোচনায় বসার আগে থেকেই প্যাংগং-এর দক্ষিণ তীরে রীতিমত সুবিধেজনক অবস্থায় রয়েছে ভারতীয় সেনা। মঙ্গলবারই জানা গিয়েছিলেন ভারতীয় জওয়ানরা দখল করেছে কালা পাহাড়। এদিন সেনা বাহিনী সূত্রে খবর ভারতীয় জওয়ানরা আধিপত্য বিস্তার করেছে হেলমেট পাহাড়েও। তবে প্যাংগং-এর দক্ষিণ প্রান্তে ভারতীয় সেনাদের সামনেই অবস্থান করছে চিনা সেনা। দুর্গম এই এলাকায় দুই পক্ষই সমর যান মোতায়েন করেছে বলে সূত্রের খবর।