Asianet News BanglaAsianet News Bangla

Vijay Diwas: 'একাই একশো' অবসরপ্রাপ্ত সুবেদার সেবা সিং-এর স্মৃতিতে আজও টাটকা ১৯৭১-এর ইতিহাস

১৯৭১ সালের ১৬ ডিসেম্বর পাকিস্তানি সেনার বিরুদ্ধে বিরাট সাফল্য পেয়েছিল ভারত- বাংলাদেশ। পাকিস্তানের অত্যাচারের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়িয়ে একটি স্বাধীন ও স্বতন্ত্র দেশ গড়ার লক্ষ্যে নামে বাংলাদেশ (তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তান)। প্রতিবেশী দেশকে এই লড়াইয়ে সামরিক ও বেসামরিক দিক থেকে পূর্ণ সাহায্য করে ভারত। এই যুদ্ধের বীর সৈনিকদের একজন অবসরপ্রাপ্ত সুবেদার সেবা সিং। আজ ৫০ বছর পরেও তাঁর স্মৃতিতে তাজা ১৯৭১-এর যুদ্ধের ইতিহাস। 
 

Ex Subedar Deva Singh recalls the memory of 1971 india pakistan war
Author
Kolkata, First Published Dec 16, 2021, 5:21 PM IST
  • Facebook
  • Twitter
  • Whatsapp

দেশের ইতিহাসে একটি গৌরবময় দিন ১৬ই ডিসেম্বর। ১৯৭১ সালে এই দিনেই পাকিস্তান সেনাবাহিনীকে (Pakistan Army) পরাস্ত করতে সক্ষম হয়েছিল ভারতীয় সেনাবাহিনী (Indian Army)। দিনটিকে বিজয় দিবসরূপে স্মরণ করে ভারত। তবে গর্বের এই দিনটি শুধু ভারতে নয় বাংলাদেশেও সমান মর্যাদা সহকারে পালিত হয়ে থাকে। বাংলাদেশের স্বাধীনতা সংগ্রামের (Bangladesh Independence Movemenet) এই লড়াইয়ে ভারতের বীর যোদ্ধাদের একজন ছিলেন পাঞ্জাবের সুবেদার সেবা সিং (Sewa Singh)। পাকিস্তান যখন ভারতের উপর ১০০০টি বোমা ফেলেছিল, জিরা গ্রামে সেবা সিংয়ের (Sewa Singh) সাহসিকতা সকলকে তাকে লাগিয়ে দিয়েছিল। খালি হাতে বোমা নিষ্ক্রিয় করেছিলেন সেবা সিং (Sewa Singh)। 

Ex Subedar Deva Singh recalls the memory of 1971 india pakistan war

প্রসঙ্গত, ৫০ বছর আগে ১৯৭১ সালের ২৫শে মার্চ পাকিস্তানী বাহিনী (Pakistan Army) ঢাকায় গণহত্যা চালানোর পর পাকিস্তানের সাথে যুদ্ধ শুরু হয়ে যায়। কয়েক মাসের মধ্যেই বাংলাদেশ থেকে প্রায় এক কোটি শরণার্থী সীমান্ত পেরিয়ে ভারতে অবস্থান নেয়। ভারতের মাটিতে বসেই ভারত সরকারের সমর্থনে বাংলাদেশের অস্থায়ী সরকার পরিচালিত হতে থাকে। বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধ (Bangladesh Independence Movement) নিয়ে ভারতের উদ্বেগ ক্রমেই তীব্রতর হতে শুরু করে। বাংলাদেশী শরণার্থীরা যেদিন ভারতে আশ্রয় নিয়েছিল তখন থেকেই ভারত পরোক্ষভাবে বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধের (Bangladesh Independence Movement) সাথে জড়িয়ে পড়েছিল। এরপর বাংলাদেশ থেকে যাওয়া এক কোটি শরণার্থীর চাপ, অন্যদিকে আন্তর্জাতিক রাজনীতি - এ দুটো কারণে পরিস্থিতি ক্রমেই জটিল আকার ধারণ করতে থাকে। ধীরে ধীরে পরিস্থিতি যুদ্ধের দিকেই মোড় নেয়। 

আরও পড়ুন- Vijay Diwas 2021: ভারতীয় সেনাবাহিনীর কাছে ৯৩০০০ পাকিস্তানী সেনার অত্মসমার্পন, জানুন এই বিশেষ দিনের অজানা তথ্য

অবসরপ্রাপ্ত সুবেদার সেবা সিং (Sewa Singh) বর্তমানে ঠিকভাবে শুনতে পান না, হাঁটতে পারেন না তবু এখনও কথা মনে রেখেছেন ১৯৭১-এর ভারত-পাক যুদ্ধের সেই ভয়াবহ ইতিহাস। পাকিস্তান যে বোমাগুলি ফেলেছিল সেগুলি প্রাণঘাতী হতে পারে জেনেও নিষ্ক্রিয় করতে এগিয়ে গেছিলেন সেবা সিং (Sewa Singh) কারণ ওই সময় তাঁর কাছে দেশের মানুষের সুরক্ষা বেশি গুরুত্বপূর্ণ ছিল। ১৯৭১ সালের ভারত-পাক যুদ্ধ ১৪দিন স্থায়ী ছিল। তিনি জানান, 'পাঞ্জাবের জিরা গ্রামে পাকিস্তান যে বেশ কয়েকটি বোমা ফেলেছিল তার মধ্যে ৬টি বোমা বিস্ফোরিত হয় নি এবং এবং একটি ফুড কর্পোরেশন অফ ইন্ডিয়ার (Food Corporation of India) শস্যের বস্তার স্তুপে পড়েছিল। ফলত, আমরা নিশ্চিত হতে পারছিলাম না যে বোমাগুলো ত্রুটিপূর্ণ ছিল না কি টাইমার ছিল। 

Ex Subedar Deva Singh recalls the memory of 1971 india pakistan war

তিনি আরও জানান, ওই সময় পাকিস্তান পাঞ্জাব এবং জম্মু ও কাশ্মীরের সীমান্ত এলাকায় বেসামরিক এবং সামরিক অবস্থানগুলিতে সম্ভবত প্রায় ১০০০ টি বোমা ফেলেছিল। এর মধ্যে অনেকগুলোই ছিল ব্রিটিশ বা যুক্তরাষ্ট্রের তৈরি বোমা। কয়েকটি বোমাতে কেবল পাকিস্তানের অর্ডন্যান্স ফ্যাক্টরির (Pakistan Ordnance Factory) চিহ্ন ছিল। প্রাক্তন সুবেদার সেবা বলেন, “আমাকে জিরা বোমা নিষ্ক্রিয় করার এবং ফিরোজপুরের কাছে এফসিআই (FCI) গোডাউন রক্ষা করার দায়িত্ব দেওয়া হয়েছিল। ঈশ্বরের কৃপায় আমি নির্বিঘ্নে আমার কাজ করতে পেরেছিলাম। আমি আমার জীবনের চেয়ে দেশের মানুষের জন্য বেশি চিন্তিত ছিলাম। আমি একাই ফিরোজপুরে সেই পাঁচটি বোমা কোনো প্রতিরক্ষামূলক স্যুট ছাড়া নিষ্ক্রিয় করেছিলাম। তবে আমাদের একটি দক্ষ এবং সফল দল ছিল। 

আরও পড়ুন- Vijay Diwas: ১৯৭১ এর ভারত পাক যুদ্ধে অন্যতম ভূমিকা ছিল যুদ্ধবিমান মিগ-২১-এর

সেবা সিং তাঁর এই বীরত্বের জন্য রাষ্ট্রপতি দ্বারা সম্মানিত হন। ১৯৭১ সালের ২৪শে ডিসেম্বর, তৎকালীন ভারতীয় রাষ্ট্রপতি ভারাহগিরি ভেঙ্কট গিরি (Varahagiri Venkata Giri) অসীম সাহসের জন্য সেবা সিংকে 'শৌর্য চক্র' (Sourya Chakra) প্রদান করেন। শুধু তাই নয় রাষ্ট্রপতি তাঁকে সৈনিক রাষ্ট্রপতির বাসভবনে তার পরিবারের সাথে থাকার সুযোগ দিয়েছিলেন। এরপর ১৯৭৪ সালের ৭ই আগস্ট তিনি প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের তৎকালীন সচিব গোবিন্দ নারায়ণের (Govind Narayan) কাছ থেকে একটি প্রশংসাপত্রও পেয়েছিলেন।

আরও পড়ুন- Vijay Diwas 2021: ওয়ার মেমোরিয়ালে শ্রদ্ধা প্রধানমন্ত্রী মোদী, রাজনাথ সিংয়ের

Follow Us:
Download App:
  • android
  • ios