দু'জন পুরুষের সঙ্গে বিকিনি পরিহিতা এক মহিলার সাদা-কালো একটি ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে। ওই সামান্য় পোশাকে থাকা মহিলাই জাতীয় কংগ্রেসের বর্তমান সভানেত্রী সনিয়া গান্ধী এমনটাই দাবি করা হচ্ছে। বলা হচ্ছে এটা তাঁর অল্প বয়সের ছবি। এক নেটিজেন সম্প্রতি ছবিটি ফেসবুকে পোস্ট করে সঙ্গের ক্যাপশনে সনিয়া গান্ধীর নাম না করে লিখেছেন, 'দেখো কংগ্রেসিরা তোমাদের রাজমাতা কে'।

শুধু যে ফেসবুকে ছবিটি ছড়াচ্ছে তাই নয়, টুইটার প্ল্যাটফর্মেও করোনাভাইরাসের গতিতে ছড়িয়ে পড়ছে ছবিটি। কোনও কোনও নেটিজেন, নিজেরা ছবির মহিলার নাম না বলে ওই অন্যদের ওই মহিলাকে সনাক্ত করার আহ্বান জানিয়েছে। কিন্তু, এই ভাইরাল পোস্টের পিছনে লুকিয়ে আছে কোন কাহিনি? কারা ওই দুই পুরুষ? সত্যিই কি এটি সনিয়া গান্ধীর অল্প বয়সের বিকিনি পরা ছবি?

এশিয়ানেট নিউজ বাংলার পক্ষ থেকে গুগল-এ ছবিটি দিয়ে বিপরীত তথ্যানুসন্ধান চালানো হয়েছিল। দেখা গিয়েছে, ছবিটি জেম্স বন্ডের বিখ্যাত চলচ্চিত্র 'ডক্টর নো' ফিল্মের একটি দৃশ্য। ফিল্মের তথ্য বিষয়ক বিশ্বস্ত ওয়েবসাইট আইএমডিবি-তেও এই ছবিটি রয়েছে। তাদের গ্যালারিতে ছবিটি সম্পর্কে বলা হয়েছে এটি ডক্টর নো ফিল্মের একটি দৃশ্য। ছবির দুই পুরুষের একজন হলেন, জেমস বন্ডের ভূমিকায় অভিনয় করা শন কনোরি এবং অপরজন টেরেন্স ইয়ং। আর ওই মহিলা হলেন হলিউডি অভিনেত্রী উরসুলা অ্যান্ড্রেস। উরসুলা অ্যান্ড্রেস মূলতঃ সুইস অভিনেত্রী হলেও বহু মার্কিন, ব্রিটিশ এবং ইতালিয় ফিল্মে অভিনয় করেছেন। তবে জেমস বন্ডের 'ডক্টর নো' ফিল্মে 'হানি রাইডার' চরিত্রের জন্যই তিনি সবচেয়ে বেশি পরিচিত।

অর্থাৎ, এই ছবিটি মোটেই কংগ্রেসীদের 'রাজমাতা' সনিয়া গান্ধীর অল্প বয়সের ছবি নয়। বস্তুত উরসুলা অ্যান্ড্রেসের ছবি-কে সনিয়া গান্ধীর ছবি বলে চালিয়ে দেওয়া এই প্রথম নয়। 'ডক্টর নো' সিনেমা থেকেই উরসুলা অ্যান্ড্রেসের বিকিনি পরা বেশ কিছু ছবি এর আগে সনিয়া গান্ধীর বিকিনি পরা ছবি বলে সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করা হয়েছিল। দুই মহিলার মধ্যে মুখের মিল রয়েছে। তাকে কাজে লাগিয়েই বারবার কংগ্রেস সভানেত্রীর ভাবমূর্তি কালিমালিপ্ত করার চেষ্টা করা হয়।