নিরাপত্তা সুনিশ্চিত করতে দিল্লিতে মোতায়েন করা হবে অতিরিক্ত আধাসেনা। কিষাণ প্যারেড ঘিরে  বুধবার সকাল থেকেই উত্তপ্ত হয়ে ওঠে জাতীয় রাজধানী। সকাল থেকেই দফায় দফায় পুলিশ ও আন্দোলনকারী কৃষকদের খণ্ডযুদ্ধ বেধে যায়। বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে আশান্তিও বাড়তে থাকে। দিনের শেষে দিল্লির আইন শৃঙ্খলার পরিস্থিতিতে নিয়ে বৈঠক করেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী অমিত শাহ। সেখানেই অতিরিক্ত আধাসেনা মোতায়ের সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়েছে। 


এদিন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রীর ডাকা বৈঠকে উপস্থিত ছিলিনে স্বরাষ্ট্র সচিব অজায় ভাল্লা সহ দিল্লির পুলিশ কমিশনার এসএস শ্রীবাস্ত ও আইবির ডিরেক্টর অরবিন্দ কুমার। কিষাণ প্যারেডে আশান্তি প্রতিহত করতে দিল্লি পুলিশ কী কী পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে সে সম্পর্কেও কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রীকে বিস্তারিত জানান হয়েছে। সূত্রের খবর অমিত শাহকে জানান হয়েছে কিষাণ প্যারেডে অংশ নেওয়া আন্দোলনকারীর মৃত্যু হয়েছে। বেশ কয়েকজন পুলিশ কর্মী জখম হয়েছে। 


অমিত শাহর সঙ্গে বৈঠকের আগেই দিল্লি  পুলিশ নিরাপত্তার কারণে সিংহু, টিকরি, গাজিপুর সহ একাধিক সীমানা এলাকায় বন্ধ করে দিয়েছে ইন্টারনেট পরিষেবা। আপাতত ১২ ঘণ্টা ইন্টারপরিষেবা স্থগিত রাখার কথা ঘোষণা করা হয়েছে।। গত বছর সেপ্টেম্বকে সংসদে তিনটি নতুন কৃষি আইন পাশ করা হয়। তারপর থেকে প্রতিবাদে সরব হন কৃষকরা। কিন্তু গত বছর ২৬ নভেম্বর দিল্লি চলো ডাক দিয়ে আন্দোলনে নামেন কৃষকরা। কিন্তু কেন্দ্রীয় সরকার দিল্লি সীমানা বন্ধ করে দেওয়া সেই থেকে সীমানা এলাকাতেই আবস্থান বিক্ষোভ চালিয়ে যাচ্ছেন আন্দোলনকারী অন্নদাতারা। 

'অসামাজিক উপাদান'এর জন্য অশান্তি, দিনের শেষে তাণ্ডবের দায় এড়াতেই কি এই তত্ত্ব আন্দোলনকারী কৃষকদের ...

কিষাণ প্যারেডে হিংসায় আইনি পদক্ষেপ পদক্ষেপ নেওয়ার হুঁশিয়ারি দিল্লি পুলিশের, আন্নদাতাদের ফিরতে আর্জি

অন্যদিকে সংযুক্ত কৃষক মোর্চার তরফ থেকে একটি নির্দেশিকা জারি করা হয়েছে। সেথানে সমস্ত আন্দোলনকারীদের নির্ধারিত স্থানে ফিরে আসতে আহ্বান জানান হয়েছে। নির্দেশিকায় বলা হয়েছে শান্তিপুর্ণভাবে তারা আন্দোলন চালিয়ে যাবে। বৈঠক করে পরবর্তী কর্মসূচি নির্ধারণ করা হবে।