দিল্লির উপকণ্ঠে চলা কৃষক আন্দোলন ২৫ দিনে পা রাখল। প্রতিকূল পরিস্থিতিতেই কৃষকরা কৃষি আইন প্রত্যাহারের দাবিতে সরব থাকবেন বলেই বার্তা দিয়েছেন। রবিবার আন্দোলনকারী কৃষকরা সেইসব সহযোগীদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়েছেন, যাঁরা আন্দোলনে সামিল হয়ে প্রাণ দিয়েছেন।  রবিবার দিনটিকে তাঁরা শ্রদ্ধা দিবস হিসেবে পালন করছেন বলেও জানিয়েছেন। সংবাদ সংস্থা এএনআইকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে এর আন্দোলনকারী কৃষক জানিয়েছেন, আন্দোলনে প্রাণ হারানো কৃষকদের আজ তাঁরা শ্রদ্ধা জানাচ্ছেন। অল ইন্ডিয়া কৃষকসভা দাবি করেছেন ২৬ নভেম্বর থেকে দিল্লির উপকণ্ঠে আন্দোলন চলছে। এখনও পর্যন্ত দুর্ঘটনা, প্রতিকূল আবহাওয়া ও অসুস্থতার কারণে ৩৩জন কৃষকের মৃত্যু হয়েছে। 

বৃহস্পতিবার টিক্রি সীমানায় হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয়েছিল এক কৃষকদের। এদিন সিংহু সীমানায় প্রবল ঠান্ডার কারণে মৃত্যু হয়েছে ৩৮ বছরের ভীম সিং। এর আগে দুর্ঘটনার কারণেই বেশ কয়েকজন আন্দোলনকারী কৃষকদের মৃত্যু হয়েছে। সিংহু বর্ডারে একটি পোস্টারে আন্দোলনকারী কৃষকদের পক্ষ থেকে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে কোনও আন্দোলনকারীর মৃত্যু কীভাবে হয়েছিল। একই সঙ্গে বলা হয়েছে আন্দোলন সার্থক না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলনকারী কৃষকরা বিশ্রাম নেবে না। একই সঙ্গে কৃষকদের এই মৃত্যুকে চরম বেদনাদায়ক হিসেবেও মন্তব্য করা বহয়েছে। এদিন সন্ধ্যায় কৃষকদের পক্ষ থেকে একটি মোমবাতি মিছিলের আয়োজন করা হয়েছে বলেও জানান হয়েছে। 

কৃষকদের দাবি নতুন তিনটি কৃষি আইন বাতিল করতে হবে। কিন্তু কৃষকদের সব দাবি মানতে নারাজ কেন্দ্রীয় সরকার কেন্দ্রীয় সরকারের পক্ষ থেকে আইন প্রত্যাহার না করে নূন্যতম সহায়ক মূল্যসহ বেশ কয়েকটি ইস্য়ুতে পরিবর্তন আনার কথা বলা হয়েছে। কিন্তু কৃষকরা তা মানতে রাজি হয়নি। এমএসপিকে আইন সিদ্ধ করার পাশাপাশি তিনটি কৃষি আইন প্রত্যাহারের দাবি জানান হয়েছে। কৃষি আইন প্রত্যাহার ইস্যুতে কৃষকদের বেশ কয়েকটি সংগঠনের সঙ্গে আলোতনায় করেছিলেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রীরা। কিন্তু এখনও পর্যন্ত কোনও রফা সূত্র বার হয়নি।