কৃষকরা প্রায় গত এক মাস ধরে কেন্দ্রীয় সরকারের প্রবর্তিত কৃষি বিলের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ প্রদর্শন করে চলেছেন। এরমধ্য়ে বুধবার কৃষিমন্ত্রী নরেন্দ্র সিং তোমর, শীঘ্রই এই অচলাবস্থা কাটার আশা প্রকাশ করলেন। তাঁর বিশ্বাস কৃষক সংগঠনগুলি অবশ্যই সরকারের অনুরোধ মেনে নিয়ে আলোচনায় আসবে। আর এই তিনটি আইন নিয়ে কৃষকদের যাবতীয় আশঙ্কা দূর হবে।

২৮ দিন ধরে দিল্লি এবং রাজধানীর বিভিন্ন সীমান্তে অবস্থান করে কৃষি বিলের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানাচ্ছেন কৃষকরা। প্রথমদিকে শুধু পঞ্জাব, ও হরিয়ানার কৃষকদেরই দেখা গেলেও, যত দিন যাচ্ছে উত্তরপ্রদেশ, রাজস্থান-সহ অন্যান্য অনেক রাজ্য থেকেই কৃষকরা এসে জড়ো হচ্ছেন প্রতিবাদস্থলে। কৃষক সংগঠনরা প্রথম থেকেই তিনটি কৃষি আইনই প্রত্যাহারের দাবি জানাচ্ছেন। অন্যদিকে, কেন্দ্রীয় সরকার সাফ জানিয়ে দিয়েছে, কোনও পরিস্থিতিতেই কৃষি আইন ফিরিয়ে নেওয়া হবে না। তবে কৃষকদের দাবি মতো সরকার আইনগুলিতে সংশোধন করতে রাজি হয়েছে। কেন্দ্রীয় কৃষিমন্ত্রী জানিয়েছিলেন, সরকার কৃষকদের সঙ্গে সম্ভাব্য সকল সমাধানের বিষয়ে কথা বলতে প্রস্তুত।

এদিন, সংবাদ সংস্থা এএনআই-কে দেওয়া এক সাক্ষাতে তিনি বলেন, কৃষক সংগঠনগুলি সরকারের দেওয়া প্রস্তাব ভেবে দেখবে বলে মনে করছেন তিনি। সেই প্রস্তাবে তারা যদি কিছু যোগ করতে বা বাদ দিতে চান, তবে তাও শুনবে সরকার। কৃষকদের সুবিধা মতো দিন ওর সময়েই সরকার তাদের সঙ্গে আলোচনার জন্য প্রস্তুত আছে বলেও জানান নরেন্দ্র সিং তোমর।

এদিন কেন্দ্রীয় কৃষিমন্ত্রী কোভিড মহামারির সময়ে ১ কোটিরও বেশি কৃষককে কৃষক ক্রেডিট কার্ডের আওতায় নিয়ে আসার ব্যাঙ্কগুলিকে ধন্যবাদ জানান। নরেন্দ্র সিং তোমর জানান, গত ৮ মাসে কৃষকদের ব্যাঙ্কগুলি ১ লক্ষ কোটি টাকা সহায়তা দিয়েছে। তিনি জানান, কৃষকদের সুবিধার্থেই মোদী সরকার কিছু সংস্কার এনেছে এবং ভবিষ্যতে আরও আনবে।