লখনউ-দিল্লি তেজস এক্সপ্রেস প্রথম বেসরকারি ট্রেন।  শুধু অক্টোবর মাসে তেজস এক্সপ্রেস ৭০ লক্ষ টাকা লাভ করেছে।  আইআরসিটিসির অধীনে থাকা এই তেজস এক্সপ্রেস শুধু টিকিট বিক্রি করে ৩.৭০ কোটি টাকা পেয়েছে বলে জানা গিয়েছে। 

আইআরসিটিসির অধীনে লখনউ-দিল্লি তেজস এক্সপ্রেস ভারতীয় রেলের সঙ্গে পরোক্ষভাবে যুক্ত। আইআরসিটিসি ভারতে ৫০টি বিশ্বমানের রেল স্টেশন গড়ে তুলবে বলে ভারতীয় রেলকে প্রতিশ্রুতি দিয়েছে। বেসরকারি এই সংস্থাকে ১৫০টি ট্রেন চালানোর অনুমতি দেওয়া হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। ৫ অক্টোবর বেসরকারি ট্রেন হিসেবে তেজস এক্সপ্রেস যাত্রা শুরু করে। তখন থেকেই এক্সপ্রেস ট্রেনটির ৮০ থেকে ৮৫ শতাংশ আসন সংরক্ষিত করেছেন যাত্রীরা। ৫ অক্টোবর থেকে ২৮ অক্টোবর পর্যন্ত আইআরসিটিসি তেজস এক্সপ্রেস থেকে তিন কোটির বেশি টাকা লাভ করেছে বলে জানা গিয়েছে। 

জানা গিয়েছে, অত্যাধুনিক মানের এই  এক্সপ্রেস ট্রেনটি চালাতে আইআরসিটিসির মোট খরচ হয় ১৪ লক্ষ টাকা।  যাত্রাী ভাড়া থেকে তেজস এক্সপ্রেস প্রতিদিন আয় করে ১৭.৫০ টাকা। আইআরসিটিসি যাত্রীদের বিশেষ কিছু সুবিধা দিচ্ছে তেজস এক্সপ্রেসে। এখানে নৈশ ভোজের সুবিধার পাশাপাশি  প্রয়োজন পড়লে যাত্রীদের ২৫ লক্ষ টাকা পর্যন্ত বিনামূল্যে বিমা দেওয়ার সুবিধা রয়েছে। তাছাড়া ট্রেন দেরিতে গন্তব্যে পৌঁছলে ক্ষতিপূরণ দেওয়া হয় আইআরসিটির পক্ষ থেকে।  সপ্তাহে ছয়দিন ট্রেনটি চলে।