সেনা দিবসের কুচকাওয়াজে অ্য়াডজুটান্ট হিসেবে গোটা দেশের স্য়ালুট গ্রহণ করলেন ক্য়াপটেন তানিয়া শেরগিল। বছর দুয়েক আগেই তিনি কর্পস অ্য়ান্ড সিগনালসের ক্য়াপ্টেন হিসেবে নিযুক্ত হন।

বুধবার কারিয়াপ্পা স্টেডিয়ামে শুরু হয় সেনা দিবসের অনুষ্ঠান। বাহিনীর অভিবাদন গ্রহণ করেন সেনাপ্রধান মুকুন্দ নারবানে। অভিবাদন গ্রহণ করেন দেশের প্রথম চিফ অব আর্মি স্টান জেনারেল বিপিন রাওয়াত। 

বছরদুয়েক আগে কর্পস অ্যান্ড সিগনালের ক্য়াপ্টেন পদে যোগ দেন তানিয়া। এদিন সেই তানিয়াই অ্য়াডজুটেন্ট হিসেবে পুরুষ সেনাদলের অভিবাদন গ্রহণ করেন। এবারে প্রজাতন্ত্র দিবসের প্য়ারেডেও একই ভূমিকায় দেখা যাবে তানিয়াকে।

এবার সেনাদিবসে ১৫জন সেনা জওয়ান সাহসিকতার পুরস্কার পাচ্ছেন। সেইসঙ্গে ১৮টি বাহিনী পাচ্ছে ইউনিট সাইটেশন। এদিন মহিলা হয়ে পুরুষ বাহিনীকে যেভাবে নেতৃত্ব দিয়েছেন তানিয়া তাতে করে সবাই মুগ্ধ। কারণ, একটা সময় ছিল যখন সেনাবাহিনীতে মহিলাদের জন্য় কোনও দরজা খোলা ছিল না। তারপর ধীরে ধীরে তারা সেনাবাহিনীতে আসার সুযোগ পায়। যদিও গত বছরে প্রজাতন্ত্র দিবসে প্রথম মহিলা অফিসার হিসেবে ক্য়াপ্টেন  ভাবনা কস্তুরী নেতৃত্ব দিয়েছিলেন সেনাদলকে। তবে সেনাদিবসে এই প্রথম কোনও মহিলা পুরুষদলকে নেতৃত্ব দিচ্ছেন। তাই এবার কার্যত ইতিহাস গড়েছেন তানিয়া।

তানিয়া বাবাও ছিলেন সেনাবাহিনীতে। পরে সেখান থেকে সিআরপিএফ -এ যোগ দেন। সেই বাবারই  সাহসী মেয়ে তানিয়া। পাঞ্চাবের হোশিয়ারপুরের বাসিন্দা তানিয়ার উচ্চতা ৫ফুট ৯ ইঞ্চি। নাগপুরের এক কলেজ থেকে ইলেকট্রনিক্স ও টেলিকমিউনিকেশনসে স্নাতক ড্রিগ্রি পান তিনি।