প্রয়াত উত্তরাখন্ডের প্রথম মহিলা ডিরেক্টর জেনারেল অব পুলিশ কাঞ্চন চৌধুরি ভট্টাচার্য। তবে কেবল উত্তরাখণ্ডেই নয় দেশের মধ্যেও প্রথম মহিলা ডিজিপি হিসাবা তাঁর নাম স্বর্নাক্ষরে লেখা থাকবে।দীর্ঘদিন ধরে অসুস্থ ছিলেন তিনি। অসুস্থতার কারণে মুম্বই-য়ে তাঁর চিকিৎসাও চলছিল বলে খবর। দীর্ঘ রোগ ভোগের পর সোমবার শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি। 

১৯৭৩ সালের ব্যাচের আইপিএস অফিসার ছিলেন কাঞ্চন চৌধুরি ভট্টাচার্য। কার্যত ইতিহাস সৃষ্টি করে ২০০৪ সালে উত্তরাখাণ্ডের প্রথম মহিলা ডিজিপি হিসাবে নিযুক্ত হন তিনি। তাঁর গোটা চাকরিজীবনে তিনি একজন নিজের একটা আলাদা পরিচিতি তুলে ধরতে পেরেছিলেন। এরপর ২০০৭ সালের ৩১ অক্টোবর নিজের কর্মজীবন থেকে অবসরজীবনে পা রাখেন।

 

ভারত-পাকিস্তানের যাবতীয় ইস্যুই দ্বিপাক্ষিক প্রকৃতির, ট্রাম্পের সঙ্গে বৈঠকে জানালেন মোদী

তবে অবসরজীবন কেবল নিজের জন্যই কাটাননি তিনি। বরং উৎসর্গ করেছিলেন দেশের কাজে। অর্থাৎ যোগ দিয়েছিলেন রাজনীতিতে। ২০১৪ সালের লোকসভা নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতাও করেন তিনি। সেবারের লোকসভা নির্বাচনে হরিদ্বার লোকসভা কেন্দ্র থেকে আম আদমি পার্টির টিকিটে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন কাঞ্চন চৌধুরি ভট্টাচার্য। যদিও সংসদের নিম্নকক্ষে স্থান করে নিতে পারেননি তিনি। 

রাজনীতির আঙিনা থেকে পুলিশ হিসাবে কর্মজীবনে এক উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত তৈরি করেছিলেন তিনি। এদিন তাঁর মৃত্যুতে গভীরভাবে শোক প্রকাশ করেছে উত্তরাখণ্ড পুলিশ। সেইসঙ্গে তাঁর প্রয়াণে গভীরভাবে শোকাহত গোটা দেশ।