সোমবার হায়দরাবাদের কাচেগুড়া রেলস্টেশনের কাছে দুটি চলন্ত ট্রেনের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এদিন সকাল ১০টা বেজে ৪০ মিনিটে লিঙ্গমপল্লী-ফলকনামা মাল্টি-মডেল ট্রান্সপোর্ট সিস্টেম, সিগন্যাল দেখে সময়মতো থামতে না পারায় উল্টো দিক থেকে আসা কুর্নুল-সেকেন্দ্রাবাদ হুন্ড্রি ইন্টারসিটি এক্সপ্রেস-এ সরাসরি গিয়ে ধাক্কা মারে। এই ঘটনায় কারোর মৃত্যু না হলেও অনেকেই আহত হয়েছেন। এরমধ্যে ১৬ জনের জখম গুরুতর।  

দুর্ঘটনা ঘটার সেই চরম মুহূর্তের সিসিটিভি ফুটেজ প্রকাশিত হয়েছে। তাতে দেখা যাচ্ছে, গতি অনেক কম থাকলেও সংঘর্ষটি এতটাই জোরালো ছিল যে ধাক্কা লাগার সঙ্গে সঙ্গে দুটি ট্রেনেরই বেশ কিছু বগি শূন্যে লাফিয়ে ওঠে। কামড়ায় থাকা যাত্রীরা এদিক-ওদিক ছিটকে পড়েন। কয়েক মুহুর্ত পরই ইন্টারসিটি এক্সপ্রেসে থাকা যাত্রীদের বগি থেকে আতঙ্কে ছুটে বেরিয়ে আসতে দেখা যায়। কয়েকজন রেললাইনের ধারে থাকা প্রাচীরের উপরও উঠে পড়েন।

দেখুন দুর্ঘটনার মুহূূর্তের সিসিটিভি ফুটেজ -

এই দুর্ঘটনায় ভাগ্যক্রমে কোনও প্রাণহানি না হলেও দুমড়ে মুচড়ে যাওয়া এমএমটিএস ট্রেনের চালক তাঁর কেবিনে আটকে পড়েছিলেন। প্রায় আট ঘন্টার আহত অবস্থায় তিনি সেখানে আটকে ছিলেন। তাঁকে বাইরে থেকে অক্সিজেন এবং অন্যান্য জীবনদায়ী মেডিকেল সহায়তা সরবরাহ করা হয়। দীর্ঘ সময় পর তাঁকে উদ্ধার করার পর দেখা যায় তাঁর পায়ে গুরুতর আঘাত লেগেছে। দ্রুত তাঁকে কাছের একটি বেসরকারি হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত তাঁর অবস্থা স্থিতিশীল বলেই জানা গিয়েছে।

রেল সুরক্ষা বিভাগের পক্ষ থেকে এই ঘটনার তদন্ত করা হচ্ছে। সেকেন্দ্রাবাদ দক্ষিণ কেন্দ্রীয় সার্কেল-এর রেল সুরক্ষা কমিশনার রাম ক্রিপাল-কে এই তদন্তের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।