পশ্চিমবঙ্গের মানুষদের চাকরির জন্য সেরা ঠিকানা কোথায় জানেন? মহারাষ্ট্র ও দিল্লি। আর যেখানে হৃদয়ের কথা উঠলেই পশ্চিমবঙ্গের মানুষ ছোটেন ঝাড়খণ্ড, বিহার ও উত্তরপ্রদেশ। ২০১১ সালের সেনসাসের সমীক্ষাতে এমন তথ্যই উঠে এসেছে। সেখানে দেখা গিয়েছে, পশ্চিমবঙ্গ থেকে বেরিয়ে গিয়ে যেসব মানুষ কর্মসংস্থানের লক্ষ্যে এগিয়ে যান, তাঁদের পছন্দের জায়গা হল মহারাষ্ট্র ও দিল্লি। পাশাপাশি পশ্চিমবঙ্গের বেশিরভাগ বাঙালি বিয়ের জন্য ঝাড়খণ্ড, বিহার ও উত্তরপ্রদেশ-এই যান।

তবে সম্প্রতি সেনসাসের তরফ থেকে নয়া তথ্য উঠে এসেছে, যেখানে দেখা গিয়েছে, বেশিরভাগ বাঙালি ঝাড়খণ্ডে গিয়ে পাকাপাকিভাবে বসবাস শুরু করছে, কেবলমাত্র বিয়ের জন্যই, চাকরির জন্য নয়। সেনসাসের রিপোর্ট বলছে, প্রায় ৫৪ হাজার মানুষ যেখানে চাকরির জন্য যাচ্ছেন, সেখানে বিয়ের জন্য পাড়ি দিয়েছেন প্রায় তিন লক্ষ মানুষ। এই একই ছবি ধরা পড়েছে উত্তরপ্রদেশ এবং বিহারেও। 

এর সম্পুর্ণ উল্টো ছবি ধরা পড়েছে মহারাষ্ট্র এবং দিল্লিতে। পশ্চিমবঙ্গ থেকে যেসব মানুষ দিল্লিতে যান তাঁদের মধ্যে ৪৫.৩ শতাংশ মানুষ যান জীবিকার সন্ধানে। পাশাপাশি একইভাবে দিল্লিতে কাজের সূত্রে যান পশ্চিমবঙ্গের ৩৪ শতাংশ মানুষ। আর এই দুই জায়গায় কাজের জন্য মহিলাদের থেকে পুরুষরাই বেশি যান। 

একইভাবে প্রতি বছর কর্মসংস্থানের জন্য প্রায় ৩৬ শতাংশ মানুষ গুজরাটে যান কর্মসংস্থানের জন্য। এরপর সেই তালিকায় রয়েছে হরিয়ানা, কর্নাটক, অন্ধ্রপ্রদেশ, ছত্তিশগড়। রিপোর্টে আরও বলা হয়েছে, মুম্বই বা নেভি মুম্বইও পশ্চিমবঙ্গের অধিকাংশ মানুষরা যান কর্মসংস্থানের জন্য। ১৯.৩ শতাংশ মানুষ মুম্বই কিংবা নেভি মুম্বইতে পাকাপাকিভাবে বসবাসের জন্য যান। তবে কর্মসংস্থানের জন্য বাঙালিদের কাছে সবচেয়ে পছন্দের জায়গা হল বেঙ্গালুরু, যেখানে প্রায় ৭১.২ শতাংশ মানুষ জীবিকার জন্য পাকাপাকিভাবে যেতে পছন্দ করেন।