রবিবার শেষকৃত্য হবে প্রাক্তন অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলির। তার আগে নিজের বাসভবন এবং বিজেপি-র সদর দফতরে প্রয়াত নেতাকে শেষশ্রদ্ধা জানাতে পারবেন সাধারণ মানুষ এবং তাঁর গুণমুগ্ধরা। 

এ দিন দুপুর ১২.০৭ মিনিটে দিল্লির এইমসে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন অরুণ জেটলি। বিকেল তিনটের কিছু পরে প্রয়াত নেতার মরদেহ হাসপাতাল থেকে তাঁর দিল্লির গ্রেটার কৈলাসের বাসভবনে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানেই সারা রাত শায়িত থাকবে তাঁর দেহ। সেখানেই প্রাক্তন অর্থমন্ত্রীকে শেষ শ্রদ্ধা জানানোর ব্যবস্থা করা হয়েছে। এর পরে রবিবার সকাল দশটা নাগাদ বাড়ি থেকে দেহ নিয়ে যাওয়া হবে বিজেপি সদর দফতরে। সেখানে বেলা বারোটা পর্যন্ত রাখা থাকবে অরুণ জেটলির মরদেহ। বেলা দুটো নাগাদ দিল্লির নিগমবোধ শ্মশানে অরুণ জেটলির শেষকৃত্য সম্পন্ন হওয়ার কথা। 

আরও পড়ুন- নোটবন্দি থেকে জিএসটি, রাফাল, মোদী সরকারের বিপদের বন্ধু ছিলেন জেটলি

আরও পড়ুন- দলীয় রাজনীতির বাইরে এক অন্য অরুণ, একজন 'আল্টিমেট ব্যাকরুম স্ট্র্যাটেজিস্ট'

অরুণ জেটলির মৃত্যু সংবাদ পাওয়ার পরেই হাসপাতালে ভিড় জমিয়েছিলেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভার একাধিক সদস্য। পরে অরুণ জেটলির বাসভবনে যান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। এর পাশাপাশি বিজেপি শীর্ষ নেতৃত্বও উপস্থিত রয়েছে অরুণ জেটলির বাড়িতে। অমিত শাহ-সহ বাকি নেতারা একে একে সেখানেই অরুণ জেটলিকে শেষ শ্রদ্ধা জানাবেন। দেশের বাইরে থাকায় অরুণ জেটলির শেষকৃত্যে থাকতে পারছেন না প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। ফোনে তিনি অরুণ জেটলির পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে কথা বলেছেন।