আত্মনির্ভর ভারত গঠনে রীতিমত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা গ্রহণ করবে ভাউপুর-খুর্জা ফ্রেইট করিডোর। মঙ্গলবার এই ফ্রেইট করিডোরের উদ্বোধন করে বলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। তিনি আরও বলেন ব্যবসায়ীদের পাশাপাশি এই করিডোরগুলি থেকে লাভবান হবেন স্থানীয় কৃষকরাও। স্বাধীনতার পর ভারতের মাটি গড়ে ওঠা ভারতীয় রেলের এটি সবথেকে বড় আধুনিক প্রকল্প বলে দাবি করেন তিনি। ভাউপুর ও খুর্জা ফ্রেইট করিডোর ঘরে প্রথম যখন ট্রেনটি চলল তখনই স্বনির্ভর ভারত গঠনের ডাক তিনি শুনতে পেয়েছিলেন বলেও জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। 

প্রয়াগরাজের অপারেশন কন্ট্রোল সেন্টারও আধুনিক ভারতের একটি প্রতীক বলেও দাবি করেন তিনি। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী বলেন, এটি বিশ্বের অন্যতম সেরা ও আধুনিক নিয়ন্ত্রণ কেন্দ্র। তিনি আরও বলেন একটি দেশের শক্তির মূল পরিচয় হয় সেই দেশটির পরিকাঠামোগত শক্তি। আর এটি সেক্ষেত্রে ভারতে আত্মবিশ্বায় যোগায় বলেও দাবি করেন তিনি। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী বলেন বিশ্বের বৃহত্তম অর্থনৈতিক শক্তির দৌড়ে অনেকটাই এগিয়ে চলেছে ভারত। এই ফ্রেইটকরিডোর সেই লড়াইয়ে ভারতকে আরও এগিয়ে দেবে বলেও দাবি করেন তিনি। 

ভাউপুর থেকে খুর্জা ৩৫১ কিলোমিটার বিস্তৃত ফ্রেইট করিডোর নির্মাণে খরচ হয়েছে ৫,৭৫০ কোটি টাকা। স্থানীয়ভাবে উৎপাদিত শিল্পগুলি এক স্থান থেকে অন্যস্থানে পরিবহণের সুবিধের জন্য এই করিডোর তৈরি করা হয়েছে। এই করিডোরের কারণে সুবিধে পাবে কানপুর দেহাট জেলার অ্যালুমিনিয়াম শিল্প, আউরিয়া জেলার দুগ্ধ শিল্প, ইটাওয়াহ জেলার বস্ত্র শিল্প, ফিরোজাবাদ জেলার কাচ শিল্প, ও একাধিক স্থানের মৃৎ শিল্প। এই করিডোরের মাধ্যতে রেলপথ দিয়ে পরিবহন অনেকটা দ্রুত হবে।