গত সপ্তাহেই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ভারতের জাতির জনক বলে বিতর্ক তুলে দিয়েছিলেন। মার্কিন প্রেসিডেন্ট অনেক ক্ষেত্রেই তাঁর  অ্জঢানতার পরিচয় দিয়েছেন। এবার কিন্তু গান্ধীর জন্ম সার্ধশতবর্ষে একেবারে গোয়ার গান্ধী মিউজিয়ামের ডিরেক্টর তথা শিল্পী সুবোধ কেরকর-ই বললেন মহাত্মা গান্ধী জাতির জনক নন। কিন্তু কেন হঠাত তিনি এই কথা বলছেন?

কেরকর সাফ জানিয়েছেন যেই দেশে গোমাংস রাখার অপরাধে মানুষকে হত্যা করা হয়, মুখ খোলার জন্য বুদ্ধিজীবীদের হত্যা করা হয়, সেই দেশের জাতির জন মহাত্মা হতেই পারেন না। তিনি প্রশ্ন তুলেছেন, 'তাঁর শিক্ষার বিরুদ্ধে যে দেশের মানুষ কাজ করে, গান্ধী কী ভাবে সেই দেশের জাতির জনক হবেন?'

গান্ধীর জন্মদিনের দিনই প্রধানমন্ত্রী মোদী ভারতকে খোলা শৌচমুক্ত বলে ঘোষণা করেছেন। কিন্তু তার দিন কয়েক আগেই দুই দলিত শিশুকে খোলা জায়গায় শৌচকর্ম করার 'অপরাধে' পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে। এই প্রসঙ্গ টেনে সুবোধ কেরকর জানান মহাত্মা গান্ধীর কাছে ব্যক্তিগত স্বাস্থ্যের মতোই সমান গুরুত্বপূর্ণ ছিল সামাজিক স্বাস্থ্য। কিন্তু বর্তমানে ভারতের সামাজিক স্বাস্থ্যের হাল অত্যন্ত খারাপ।

তাই তাঁর মতে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে জাতির জনক বলে ঠিকই করেছেন। কারণ গান্ধী আর যাই হোক এই দেশের জাতির জনক হতে পারেন না।