এই সপ্তাহের শুরুতেই পর্যটকদের জন্য খুলে দেওয়া হয়েছিল গোয়া। কিন্তু শুক্রবার পানাজি-র মূল বাজারটিই চার দিনের জন্য বন্ধ হয়ে গেল। বাজারটির পরিচালক পানাজি পৌর কর্পোরেশন। মেয়র উদয় মদকাইকার জানিয়েছেন, বাজারের মধ্যে থাকা একটি বার-এর মদ পরিবেশক করোনা পজিটিভ সনাক্ত হয়েছেন। তাই আগামী কয়েকদিনে বাজারটিকে সম্পূর্ণ জীবানুমুক্ত করা হবে। এদিকে সেই মদ পরিবেশক রহস্যজনকভাবে উধাও হয়ে দিয়েছেন। এই নিয়ে তদন্তে নেমেছে পুলিশ।

জানা গিয়েছে, করোনা পজিটিভ ধরা পড়ার পরই রাজ্য প্রশাসনের একটি দল ওই মদ পরিবেশককে কোভিড-১৯ চিকিৎসা কেন্দ্রে নিয়ে যাওয়ার জন্য তাঁর বাড়িতে গিয়েছিল। কিন্তু, তাঁকে কোনওভাবেই খুঁজে পায়নি। এরপরই তারা পুলিশকে বিষয়টি জানায় এবং তাকে খুঁজে বার করার নির্দেশ দেয়। পুলিশের প্রাথমিক তদন্তে জানা গিয়েছে ওই মদ পরিবেশক দিল্লির বাসিন্দা। দিল্লি থেকে ট্রেনে করে গোয়ায় এসেছিল। অদ্ভূত বিষয় হল দিল্লি পুলিশের রেকর্ড অনুসারে ওই ব্যক্তির নামে একটি 'নিখোঁজ' মামলা নথিভুক্ত আছে।

গোয়ার স্বাস্থ্য সচিব নীলা মোহনন জানিয়েছেন, পুলিশ ও রাজ্য প্রশাসনের পক্ষ থেকে তাঁকে খোঁজা হচ্ছে। তবে মূল সমস্যা হল ওই ব্যক্তির কোনও পরিচয় সম্পর্কেই নিশ্চিত হওয়া যাচ্ছে না। কোভিড পরীক্ষার আগে কর্তৃপক্ষের কাছে সে যে ফর্ম জমা দিয়েছিল তাতে যে ঠিকানা লেখা ছিল, তা ভুয়ো। তাই তাকে খোঁজার কাজটা বেশ জটিল।

গোয়ায় বর্তমানে সক্রিয় কোভিড মামলার সংখ্যা ৩৫০ টি। এতদিন গোয়ার বেশিরভাগ করোনা সংক্রমণই সীমাবদ্ধ ছিল দক্ষিণ গোয়ার ম্যাঙ্গোর হিল অঞ্চলে। তাই এলাকাটিকে কনটেইনমেন্ট জোন ঘোষণাও করা হয়। কিন্তু, গত দুদিনে এই এলাকার বাইরে সত্তারী উপ-জেলা, পানাজি-সহ গোয়ার বিভিন্ন প্রত্যন্ত অঞ্চলের গ্রামগুলি থেকেও নতুন করোনা রোগীর সন্ধান পাওয়া গিয়েছে। যা রাজ্য সরকারের উদ্বেগ বাড়িয়েছে। তারমধ্যে এই রহস্যময় ব্যক্তির নিখোঁজ হয়ে যাওয়া বাড়তি ঝামেলা তৈরি করেছে।