দেশের আর্থিক অবস্থার হাঁড়ির হাল। এই অবস্থায় আর্থিক বৃদ্ধির কথা মাথায় রেখে দেশীয় সংস্থাগুলির পালে হাওয়া দিতে চাইছে সরকার। এদিন গোয়ায় জিএসটি কৈাউন্সিলের বৈঠকে কর্পোরেট ট্যাক্স অনেকটা কমিয়ে ২৫.১৭ শতাংশ করা হল। এর মধ্যে সেস ও সারচার্জ-ও ধরা হয়েছে। চলতি আর্থিক বছর অর্থাৎ ২০১৯ সালের ১ এপ্রিল থেকেই এই নয়া করের হার প্রযুক্ত হবে।

আর যদি কোনও সংস্থা ভর্তুকি ও ছাড় গ্রহণ না করে সেই ক্ষেত্রে করের হার দাঁড়াবে ২২ শতাংশ। আর এই স্ল্যাব বাছাই করলে সংস্থাগুলিকে মিনিমাম অল্টারনেটিভ ট্যাক্স-ও দিতে হবে না।

নতুন স্থাপিত উৎপাদন সংস্থাগুলির জন্য আরও সুবিধা দেওয়া হয়েছে। অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমণ জানিয়েছেন, ১ অক্টোবর বা তার পরে যে সংস্থাগুলি গঠিত হয়েছে, তাদের আয়কর দিতে হবে ১৫ শতাংশ করে। অর্থাৎ সেস ও সারচার্জ যুক্ত হলে এই করের হার দাঁড়াবে ১৭.১ শতাংশে। এছাড়া, বর্তমানে যে ট্যাক্স হলিডে ও চাড় উপভোগ করছেন, তার মেয়াদ ফুরিয়ে গেলে সংস্থাগুলি কম ট্যাক্সের স্ল্যাব বাছতে পারবে।

এই সব সিদ্ধান্তের ফলে বছরে সরকারের লভ্যাংশের ক্ষতি হবে প্রায় ১.৪৫ লক্ষ কোটি টাকা বলে জানিয়েছেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী। কিন্তু এতে করে লগ্নি ও আর্থিক বৃদ্ধি বাড়বে বলে আশা করছে সরকার। একটি অর্জিন্যান্স দারি করে এই নতুন কর চালু করা হবে বলে জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমণ।