অবশেষে রাজস্থানের মুখ্যমন্ত্রী অশোক গেহলটের দাবি মেনে নিলেন রাজ্যপাল কলরাজ মিশ্র। কিছুটা হলেও সরে এসেছেন নিজের অবস্থান থেকে। বুধবার সকালেও রাজস্থানের রাজ্যপালের দাবি ছিল ২১ দিনের নোটিশের পরই বিধানসভার অধিবেশন ডাকবেন। কিন্তু এদিন রায়ে রাজভবন থেকে একটি নোটিশ জারি করা হয়েছে। আর সেখানেই বলা হয়েছে আদামী ১৪ই অগাস্ট শুরু করতে হবে রাজস্থান বিধানসভার অধিবেশন। পাশাপাশি রাজভবন থেকে বলা হয়েছে অধিবেশনের সময় রীতিমত গুরুত্ব দিতে হবে করোনাভাইরাস সংক্রান্ত স্বাস্থ্যবিধির ওপর। 

রাজস্থান বিধানসভার অধিবেশেনর ডাকার আবেদন জানিয়েছেন বুধবার পর্যন্ত প্রায় চার বার রাজভবনে গিয়েছিলেন অশোক গেহলট। একবারতো দলের বিধায়কদের নিয়েই হাজির হয়েছিলেন রাজভবনে। কিন্তু তখনও অধিবেশন ডাকতে নারাজ ছিলেন রাজ্যপাল। তাই খালি হাতেই ফিরতে হয়েছিল গেহলটকে।

আগামী ১৪ই অগাস্ট অনুষ্ঠিত হতে চলেছে বহু প্রতীক্ষিত রাজস্থান বিধানসভার অধিবেশন। কিন্তু সেই অধিবেশনে কি হাজির হবেন শচীন পাইলট আর তার অনিগামীরা? এটাই এখন রাজস্থানের রাজনীতিতে লাখ টাকার প্রশ্ন। 

এখনও পর্যন্ত পাইলট ও তাঁর অনুগামীদের পক্ষ থেকে কিছু জানান হয়নি। তবে এদিন সকালেই রাজস্থানের স্পিকার সিপি জোশীকে জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন বিদ্রোহী কংগ্রেস নেতা শচীন পাইলট। তারপরই পাইলট স্বাগত জানিয়েছেন রাজস্থানের নতুন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি গোপিন্দ সিং দোতাসরাকে। পাশাপাশি তিনি এও বলেছেন যে তিনি আশা করেন কোনও চাপের কাছে নতি স্বীকার করবেন না। তিনি আরও বলেছেন যেসব দলীয় কর্মীরা প্রবল পরিশ্রম করে কংগ্রেসকে রাজস্থানের ক্ষমতায় আসতে সাহায্য করেছেন তাঁদের দিকে নজর দেবেন। এদিনই অনুষ্ঠানিকভাবে রাজ্য কংগ্রেসের দায়িত্ব গ্রহণ করেছেন গোবিন্দ সিং। শচীন পাইলকে সরিয়ে তাঁর জায়গায় বসানো হয়েছে গোবিন্দ সিংকে। তিনি অবশ্য পাইটলের ট্যাইটের কোনও উত্তর দেননি। তবে তিনি সনিয়া গান্ধী ও রাহুল গান্ধীকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন।