ডিজিটাল মিডিয়া ইন্টারমিডিয়েটরি-দের জন্য জারি করা নতুন আইটি বিধি মেনে চলার জন্য সোশ্যাল মিডিয়া সংস্থা টুইটার-কে শেষ নোটিশ দিল ভারত সরকার। শনিবার, টুইটারের ডেপুটি জেলারেল কাউন্সেল জিম বেকার-কে ইলেক্ট্রনিক্স এবং তথ্য প্রযুক্তি মন্ত্রক-এর সাইবার আইনের গ্রুপ কোঅর্ডিনেটর রাকেশ মাহেশ্বরী চিঠি দিয়ে বলেছেন, মন্ত্রকের পক্ষ থেকে বারবার চিঠি দেওয়া সত্ত্বেও টুইটার সংস্থা এই বিধি না মানার কোনও উপযুক্ত ব্যাখ্যা দিতে পারেনি।

সংবাদ সংস্থা এএনআই চিঠিটি টুইটারে শেয়ার করেছে। তাতে দেখা যাচ্ছে, সরকারের পক্ষ থেকে অভিযোগ করা হয়েছে, নয়া বিধি অনুসারে টুইটার সংস্থা চিফ কমপ্লায়েন্স অফিসার নিয়োগ করেনি, বা তার বিষয়ে সরকারকে কিছু জানানি। এছাড়া সংস্থার পক্ষ থেকে যে চিফ  গ্রিভেন্স অফিসার এবং নোডাল অফিসার নিয়োগ করা হয়েছে, তারা কেউই টুইটার ইন্ডিয়ার কর্মচারী নন। এছাড়া টুইটারের ভারতীয় যে ঠিকানা দেওয়া হয়েছে, তা ভারতের একটি আইন-প্রতিষ্ঠানের। কাজেই এই ক্ষেত্রেও নয়া বিধি মানেনি টুইটার। বিধিগুলি অবিলম্বে মেনে চলার জন্য এটি যে শেষ নোটিশ, তা সাফ জানানো হয়েছে চিঠিতে। বিধিগুলি না মানলে আইটি আইনের অধীনে শাস্তি পেতে হবে।

চলতি মাসের শুরুতেই, টুইটার এক বিবৃতি জারি করে ভারতের নয়া আইটি বিধি মেনে চলার বিষয়ে সম্মতি জানিয়েছিল। তবে এই বিধিগুলি প্রযুক্ত হলে, ব্যবহারকারীদের বাকস্বাধীনতা এবং গোপনীয়তা লঙ্ঘিত হতে পারে বলে উদ্বেগও প্রকাশ করেছিল সোশ্যাল মিডিয়া সংস্থাটি। ভারতে তাদের কর্মচারীদের নিরাপত্তা নিয়েও উদ্বেগ প্রকাশ করেছিল তারা।

এরমধ্যে, শনিবার, ভারতের উপ রাষ্ট্রপতি এম বেঙ্কাইয়া নাইডু থেকে শুরু করে আরএসএস প্রধান মোহন ভাগবত সহ আরএসএস-এর পাঁচ বর্ষিয়ান নেতার র ব্যক্তিগত টুইটার অ্যাকাউন্ট থেকে 'ভেরিভায়েড অ্যাকাউন্টের '-এর নীল দাগ সরিয়ে দিয়েছে টুইটার। পরে উপ-রাষ্ট্রপতির অ্যাকাউন্টটে নীল দাগ ফিরলেও বাকিদের ফেরেনি। টুইটারের যুক্তি দীর্ঘদিন ধরে ইন্যাক্টিভ থাকার কারণেই 'নীল দাগ' সরিয়ে নেওয়া হয়েছে।