গত বৃহস্পতিবার, তেলেঙ্গানার রঙ্গা রেড্ডি জেলায় দগ্ধ অবস্থায় লাশ মিলেছিল ২৬ বছরের পশু চিকিৎসকের। সেই ঘটনার তদন্তে ষড়যন্ত্র করে গণধর্ষণ ও হত্যার যে ভয়াবহ ছবি ফুটে উঠেছে তাতে গোটা দেশ আলোড়িত। এরমধ্য়েই সোমবার ফের এক মহিলার অর্ধদগ্ধ দেহ ঘিরে রহস্য দানা বাঁধছে। এবারের ঘটনা ছত্তিশগড়ের।

এদিন, ছত্তিশগড়ের বলরামপুর জেলার রাজপুরের মুড়কা গ্রামে এক মহিলার অর্ধদগ্ধ লাশ ঘিরে এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্য তৈরি হয়। এলাকাবাসী পুলিশে খবর দিলে, পুলিশ এসে দেহটি উদ্ধার করে। হায়দরাবাদের ঘটনার মতো দেহটি সম্পূর্ণ পুড়ে না গেলেও, লাশ এখনও সনাক্ত করা যায়নি।

বলরামপুরের এসপি টি আর কোশিমা জানিয়েছেন, লাশ সনাক্তকরণের কাজ চলছে। হায়দরাবাদের ঘটনায় দেহের অনতিদূরেই মহিলার অন্তর্বাস ও একটি মদের বোতল মিলেছিল। যার থেকে পুলিশের প্রথমেই সন্দেহ হয়েছিল, ওই মহিলাকে ধর্ষণ করেই খুন করা হয়েছে। ময়না তদন্তের রিপোর্টে পুলিশের সন্দেহেই সিলমোহর পড়েছিল।

বলরামপুরের এসপি জানিয়েছেন, এই ক্ষেত্রেও মহিলাকে ধর্ষণ করা হয়েছে বলে সন্দেহ করার মতো কোনও সূত্র ঘটনাস্থল থেকে পাওয়া যায়নি। দেহ ময়না তদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে। সেই রিপোর্ট এলে তবেই নিশ্চিতভাবে বলা যাবে এই ক্ষেত্রেও ধর্ষণ ও খুনের ঘটনা ঘটেছে কিনা। তবে প্রাথমিক তদন্তে তাঁরা মনে করছেন মহিলার লাশটি বাইরে কোথাও থেকে ওই জায়গায় এনে ফেলে দেওয়া হয়েছে।