সংসদে কৃষি বিল পাস হওয়ার পরই কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভা এবং এনডিএ ছেড়েছিল পঞ্জাবের শিরোমণি অকালি দল। এবার কৃষক আন্দোলনকে সামনে রেখে এনডিএ ছাড়ার হুমকি দিল বিজেপির আরও এক সঙ্গী। যার জেরে পড়ে যেতে পারে হরিয়ানার বিজেপি সরকার। শুক্রবার, রাজ্যের উপমুখ্যমন্ত্রী তথা জননায়ক জনতা পার্টির প্রধান দুশ্যন্ত চৌটালা বলেছেন, কৃষকদের জন্য মনোহরলাল খট্টর সরকার এমএসপি সুরক্ষিত করতে না পারলে তিনি তাঁর পদ থেকে ইস্তফা দেবেন। কারণ, কৃষকদের তিনি এমএসপি সুরক্ষা করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন।

জেজেপি নেতা দুশ্যন্ত চৌটালা বলেন, তাঁদের দল পরিষ্কার করে দিয়েছে, কৃষকদের জন্য এমএসপি নিশ্চিত করা আবশ্যিক। তিনি আরও বলেন, উপমুখ্যমন্ত্রী পদে তিনি যতক্ষণ থাকবেন, কৃষকদের জন্য ন্যূনতম সমর্থন মূল্য সুরক্ষিত করার জন্য কাজ করবেন। যেদিন দেখবেন, তা পারছেন না, সেইদিনই তিনি পদত্যাগ করবেন বলে জানিয়ে দিয়েছেন।

বুধবার কেন্দ্রীয় সরকার এমএসপি, মান্ডি ব্যবস্থা-সহ কৃষকদের অন্যান্য দাবিদাওয়ার বিষয়ে লিখিত আশ্বাস দেওয়ার প্রস্তাব দিয়েছে। বৃহস্পদতিবার, দূষ্যন্ত চৌটালা আশা প্রকাশ করেছিলেন কৃষকরা তাদের আন্দোলন বন্ধ করবে। চৌটালা বলেছিলেন আন্দোলনরত কৃষকরা নিশ্চয়ই বুঝবেন যে, কেন্দ্র যখন লিখিত আশ্বাস দিচ্ছে, তখন এটা 'তাদের সংগ্রামেরই বিজয়'। কিন্তু, কার্যক্ষেত্রে কৃষকরা সরকারি সেই প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করেছেন এবং এখনও কৃষি আইন প্রত্যাহারের দাবিতে অনড়। এই অবস্থায় রাজ্যের বিজেপি বিরোধী দলগুলি এবং হরিয়ানার কৃষকদের চাপের মুখে, দুষ্যন্ত চৌটালা ফের বললেন, ন্যূনতম সমর্থন মূল্য ব্যবস্থা হুমকির মুখে পড়লে তিনি পদত্যাগ করবেন।