১২ অগাস্ট রাত ৯টা থেকে সম্প্রচার হল নরেন্দ্র মোদীর বহু বিজ্ঞাপিত টেলিভিশন শো ম্যান ভার্সাস ওয়াইল্ড। সোশ্যাল মিডিয়ায় অনেকে একে 'বন কি বাত' বলে নামাঙ্কিত করলেও, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীই দ্বিতীয় রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব, যিনি প্রাক্তন মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার পর জনপ্রিয় এই শো-এ অংশ নিলেন। এক ঝলকে দেখে নিন শো-এর কিছু গুরুত্বপূর্ণ অংশ। 

সঞ্চালক বেয়ার গ্রিলস-এর সঙ্গে কথোপকথনে মোদী মজার ছলেই বলেন যে ছাত্র হিসাবে তিনি মোটেই ভাল ছিলেন না। স্কুলে ফিটফাট হয়ে গেলেও বাড়িতে ছিল না ইস্ত্রি। তাই পিপেতে গরম কয়লা ভরে তা দিয়েই জামা ইস্ত্রি করতেন। এরপর ১৭ বছর বয়সে ঘর ছেড়ে হিমালয়ে বসবাস করতেন। প্রকৃতির প্রতি ভালবাসা থেকেই তিনি প্রকৃতির বুকেই খুঁজে পেয়েছিলেন বেঁচে থাকার রসদ- বেয়ার গ্রিলস-কে তেমনটাই জানান তিনি।

গ্রিলত তাঁকে প্রশ্ন করেন যে, ভারতের প্রধানমন্ত্রীর হওয়ার স্বপ্ন কি তিনি দেখেছিলেন, এর উত্তরে মোদীর স্পষ্ট জবাব, দেশের উন্নয়নের দিকে সর্বদাই ঝোঁক ছিল তাঁর, এবং এখন তিনি তাঁর কাজে ভীষণ সন্তুষ্ট বলেও জানান তিনি। সেইসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন যে, দীর্ঘ ১৮ বছর পর তিনি কোথাও ছুটি কাটাতে এলেন। 

শো-এর মাঝে ভয়কে জয় করার মন্ত্রও দিলেন প্রধানমন্ত্রী। তিনি বলেন, তাঁর সমস্যা এটাই যে, তিনি কখনও ভয় পান না। সবকিছুর মধ্যেই একটা ইতিবাচক দিক খুঁজে পান মোদী। আর সেই কারণেই হয়তো হতাশা তাঁকে গ্রাস করে না। 

বেজিং-এর সঙ্গে স্থিতিশীল হোক ভারতের সম্পর্ক, চিন সফরে গিয়ে বললেন বিদেশমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর

মজার ছলে মোদী ভাগ করে নিলেন একটি কুমির ছানা পোষার গল্প। ছোটবেলায় একবার পুকুরে স্নান করতে গিয়ে একটি কুমির ছানা ধরে এনেছিলেন তিনি। তখন তাঁর মা তাঁকে বলেছিলেন  যে, এমনটা করা অন্যায়, তারপর তিনি পুকুরেই ছেড়ে দিয়ে আসেন সেই কুমির ছানাটি।

পাশাপাশি এই শো-এ মোদীর মুখে শোনা গেল স্বচ্ছ ভারত-এর প্রসঙ্গও। তিনি বলেন, ভারতের মানুষই ভারতকে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন করে তুলতে পারেন। এই প্রসঙ্গে তিনি বলেন, মহাত্মা গান্ধীও দেশকে স্বচ্ছ রাখার জন্য অনেক কাজ করেছিলেন। সাম্প্রতিককালে স্বচ্ছ ভারত মিশন অনেকটাই সাফল্য লাভ করেছে বলেও জানান তিনি।