ট্রায়াল রান আগেই সারা হয়েছিল, আজ থেকে আনুষ্ঠানিক ভাবে যাত্রা শুরু হল বন্দে ভারত এক্সপ্রেসের। নয়াদিল্লি স্টেশন থেকে  সম্পূর্ণ দেশীয় প্রযুক্তিতে তৈরি ভারতের প্রথম ইঞ্জিনহীন সেমি-হাইস্পিড ট্রেন  বন্দে ভারত এক্সপ্রেসের উদ্বোধন করলেন দেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ।

যাত্রী নিয়ে ঘণ্টায় ১৩০ কিলোমিটার গতিতে ছুটবে এই ট্রেন। সাধারণত দিল্লি থেকে কাটরা যেতে সময় লাগে ১২ ঘণ্টা। তবে বন্দে ভারত এক্সপ্রেসের দৌলতে মাত্র ৮ ঘণ্টাতেই  গন্তব্যে পৌঁছে যাবেন যাত্রীরা। শেষ স্টেশন বৈষ্ণোদেবী। দিল্লি -কাটরা এই বন্দে ভারত এক্সপ্রেসকে ট্রেন ১৮ বলেও ডাকা হচ্ছে। 

এই ট্রেনের ট্রায়াল রান আগেই সারা হয়ে গিয়েছে। চলতি বছর ফেব্রুয়ারিতে যার উদ্ধোধন করেন স্বয়ং প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। পরীক্ষামূলক যাত্রায় বন্দে ভারত এক্সপ্রেসের গতি ছিল ঘণ্টায় ১৮০ কিলোমিটার। ২০২২ সালের মধ্যে সারা দেশে মোট ৪০টি বন্দে ভারত এক্সপ্রেস চালানোর পরিকল্পনা রয়েছে কেন্দ্রের। 

শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত এই লাক্সারি ট্রেনে থাকছে ১৬টি কোচ। যার মধ্যে রয়েছে ২টি চালকের কোচ, ২টি এক্সিকিউটিভ চেয়ার কার এবং ১২টি চেয়ার কার কোচ। প্রতিটি কোচেই থাকছে প্রতিবন্ধী সহায়ক টয়লেটের ব্যবস্থা। প্রতিটি কোচের জন্য থাকছে আলাদা প্যান্ট্রি। রয়েছে সিসিটিভির নজরদারি ব্যবস্থা। প্রতিটি কোচে থাকা এলইডি স্ক্রিনে পরবর্তী স্টেশনের নাম দেওয়া থাকবে। ট্রেনের প্রতিটি দরজা স্বয়ংক্রিয়। যান্ত্রকি ত্রুটি মেরামতির জন্য ট্র্নে ১৫ থেকে ২০ জন টেকনিক্যাল স্টাফ থাকবেন।