সোমবার জম্মু-কাশ্মীরে রদ হল ৩৭০ ধারা। এদিন রাজ্যসভায় এই প্রস্তাব পেশ করেন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী অমিত শাহ। বহু দিন ধরেই বিজেপি এই ধারার বিপক্ষে মত দিয়েছে। এই মুহূর্তে কাশ্মীরের অবস্থা উত্তপ্ত। ওমর আবদুল্লা, মেহবুবা মুফতি সহ বিজেপি বিরোধী রাজনীতিকরা গৃহবন্দি। দেখে নেওয়া যাক আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমগুলি এই ৩৭০ ধারা তুলে দেওয়ার সিদ্ধান্তকে কী ভাবে দেখছে- 

১) বিবিসি- ৩৭০ ধারা সংবিধানের খুবই স্পর্শকাতর একটি ধারা কারণ এটি মুসলিম-অধ্যুষিত একটি রাজ্যকে বিশেষ মর্যাদা দেয়। পাকিস্তান ভারতের এই সিদ্ধান্তের সমালোচনা করেছে। পাকিস্তানের বিদেশ মন্ত্রী শাহ 
মেহমুদ কুরেশি বলছেন, "ভারত একটি ভয়ঙ্কর খেলা খেলছে। এর ফলাফল সাংঘাতিক হবে যা এই অঞ্চলের শান্তি ও স্থিরতায় ব্যাঘাত ঘটাবে।" ভারতের হিন্দুত্ববাদী সরকারের এই সিদ্ধান্তে আজ রাজ্যসভায় অশান্তি সৃষ্টি হয়। বিভিন্ন মহলে এই সিদ্ধান্তকে অসাংবিধানিকও বলা হচ্ছে। 

আরও পড়ুনঃ কাশ্মীর ইস্যুতে সর্বোচ্চ সতর্কতা জারি করা হল রাজধানীর মেট্রো পরিষেবায়

২) ডন (পাক সংবাদমাধ্যম)- পাকিস্তান ভারতের এই সিদ্ধান্তকে বেআইনি তকমা দিয়েছে। নরেন্দ্র মোদী সরকার কাশ্মীরে অতিরিক্ত সেনা মোতায়েন করেছে এবং ইন্টারনেট ও মোবাইল পরিষেবা সম্পূর্ণ ভাবে বন্ধ করেছে। এর পরেই জম্মু কাশ্মীরের মানুষের থেকে বিশেষ অধিকারকে দুর্বল করতে এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এই প্রসঙ্গেই পাকিস্তান এই সিদ্ধান্তকে বেআইনি বলছে। বিদেশ মন্ত্রক বলছে, কাশ্মীর যে একটি বিতর্কিত অঞ্চল তা সারা বিশ্বের কাছে অবহিত। ফলত এই বেআইনি সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানোর বহু রাস্তা আছে। 

৩) রয়টার্স- সোমবার ভারত তার একমাত্র মুসলিম অধ্যুষিত রাজ্য জম্মু-কাশ্মীরের উপর থেকে বিশেষ মর্যাদার তকমা তুলে নিল। দেশের বাকি রাজ্যগুলির সঙ্গে মিলে গেল জম্মু ও কাশ্মীর। হিমালয়ের কোলে সাত দশক ধরে বিতর্কিত এই অঞ্চলে ভারতের এই সিদ্ধান্ত খুবই তাৎপর্যপূর্ণ। অমিত শাহ জানান, এবার থেকে ভারতীয় সংবিধানের সমস্ত ধারাগুলিই জম্মু ও কাশ্মীরের জন্য় প্রযোজ্য হবে। 

৪) ওয়াশিংটন পোস্ট- ভারত জম্মু ও কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা বাতিল করল। এই সিদ্ধান্ত নতুন করে এই বিতর্কিত অঞ্চলে সমস্যা তৈরি করবে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। এই সিদ্ধান্ত ঘোষণার আগেও কাশ্মীরের পরিস্থিতি অশান্ত ছিল। এই অঞ্চলে রাজনৈতিক নেতা মন্ত্রীদের গৃহবন্দি করা হয় এবং মোবাইল ও ইন্টারনেট পরিষেবা বন্ধ করে দেওয়া হয় কোনও যুক্তি বা কৈফিয়ৎ না দিয়েই। মে মাসে হিন্দুত্ববাদ প্রভাবিত রাজনৈতিক দল বিপুল ভোটে লোকসভা নির্বাচনে জয়ী হয়। তার পরেই ৩৭০ ধারা রদ করতে এই নড়েচড়ে বসে ভারত। তবে এই সিদ্ধান্ত কাশ্মীরের সঙ্গে রাজধানীর সম্পর্ক আরও খারাপ করবে বলেই মনে  করা হচ্ছে। 

৫) নিউ ইয়র্ক টাইমস- যুগ যুগ ধরে চলে আসা জম্মু কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদাকে বাতিল করল ভারত। এই ঘোষণা করতেই রাজ্যসভায় বিরোধীরা অসন্তোষ প্রকাশ করেন। এই সিদ্ধান্ত ঘোষণার আগে থেকেই কাশ্মীরের পরিস্থিতি উত্তপ্ত ছিল। এই সিদ্ধান্ত উপত্যকায় আরও অশান্তি ও হিংসা তৈরি করবে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। 

৬) দ্য গার্ডিয়ান- জম্মু কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা বাতিল করেছে ভারত। এছাড়া জম্মু-কাশ্মীর ও লাদাখকে দুটি পৃথক কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল বলে ঘোষণা করেছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। মুসলিম অধ্যুষিত অঞ্চলে এই সিদ্ধান্তের ফলে অশান্তি তৈরি হবে এবং পাকিস্তানের সঙ্গেও দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কের অবনতি হবে বলে মনে করা হচ্ছে। 

৭) খলিজ টাইমস- জম্মু কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা বাতিল করেছে ভারত। কিন্তু পাকিস্তান ভারতের এই সিদ্ধান্ত মানতে নারাজ। পাকিস্তানের বিদেশ মন্ত্রক জানিয়েছে ভারতের এই সিদ্ধান্ত রাষ্ট্রসঙ্ঘের সংকল্পের বিরোধিতা করে।