শনিবার সুপ্রিম কোর্টে বিতর্কিত অযোধ্যা মামলার রায় বেরিয়েছে। কিন্তু তার আগের দিন অর্থাৎ শুক্রবার রায় ঘোষণার সময় প্রকাশ করার পর থেকেই বিভিন্ন মন্তব্যে মুখর হয়ে হয়েছিলেন নেটিজেনরা। রায় ঘোষণার পর থেকেই সুপ্রিম কোর্টের রায়ের পক্ষে বা বিপক্ষে নিজের মতামতে সারাদিন দেশের রাজনীতিবিদদের পাশাপাশি নেটিজেনরা মগ্ন ছিলেন। আর তাতেই ভারত টুইটারে একটা রেকর্ড ছুয়ে ফেলল। 

একটি রিপোর্টে জানা গিয়েছে, শুধু শনিবার হ্যাসট্যাগ অযোধ্যা ভারডিক্ট দিয়ে  প্রায় ছয় লক্ষ ত্রিশ হাজার মন্তব্য প্রকাশ করা হয়েছে। আধ্যাত্মিক গুরু শ্রী শ্রী রবিশঙ্কর অযোধ্যার বিতর্কিত জমি মামলা নিয়ে নিজের মন্তব্য প্রকাশ করতে এই হ্যাসট্যাগ  ব্যবহার করেছেন।  শনিবার সারাদিন টুইটারের হ্যাসট্যাগ ট্রেন্ডে ছিল  রামমন্দির, বাবরি মসজিদ।  টুইটারে পাঁচ লক্ষ ৪৭ হাজারের ওপরের মানুষ নিজের মন্তব্য প্রকাশ করতে গিয়ে বাবরি মসজিদ হ্যাসট্যাগ ব্যবহার করেছেন।  রামমন্দির হ্যাসট্যাগ ব্যবহার করে নিজের মন্তব্য প্রকাশ করেছেন  এক লক্ষ ১৩ হাজার নেটিজেন।  সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈয়ের  নামেও হ্যাসট্যাগ ব্যবহার করেছেন অনেকে। এর সংখ্যা প্রায় ৩২৯০।  অযোধ্যার বিতর্কিত জমি মামলায় রায়ে মন্তব্যে তিন লক্ষ ৭৪ হাজার টুইটে হ্যাসট্যাগ জয় শ্রী রাম দেওয়া হয়েছে। এই রায়ের পর  অপ্রীতিকর পরিস্থিতি র আশঙ্কা অনেকেই করেছিলেন। সম্প্রীতি বজায় রাখতে যে সব  টুইট করা হয়েছে, সেখানে  হ্যাসট্যাগ ব্যবহার করা হয়েছে হিন্দু মুসলিম ভাই ভাই।  তিন লক্ষ ৭৪ হাজার টুইটে রয়েছে হ্যাসট্যাগ হিন্দু মুসলিম ভাই ভাই। 


শনিবার সুপ্রিম কোর্টে ঐতিহাসিক অযোধ্যা মামলার রায় বের হয়। অযোধ্যা মামলার রায়ে বিতর্কিত ২.৭৭ একর জমি শেষ পর্যন্ত রামলালাকেই দেওয়া হয়।   ওই বিতর্কিত জমিতে রামমন্দির তৈরি হবে। মন্দিরর তৈরির জন্য ট্রাস্ট গঠনে সরকার পক্ষকে তিন মাস সময় দেওয়া হয়েছে। সুন্নি ওয়াকফ বোর্ডকে  পাঁচ একর জমি মসজিদ নির্মাণের জন্য দেওয়া হয়েছে। এই রায় মেনে নিয়েছে সুন্নি ওয়াকফ বোর্ড। তারা জানিয়েছে, নতুন জমিতে আরও বড় আকারে মসজিদ নির্মাণ গঠন করা হবে।