রবিবার কর্ণাটকে নিট (ন্য়াশনাল এলিজিবিলিটি কাম এনট্র্য়ান্স টেস্ট) পরীক্ষা চলছিল। কিন্তু ট্রেন সময় মতো না আসায় পরীক্ষায় বসতে পারেননি ১০০ জন পরীক্ষার্থী। ট্রেনটি ৬ ঘণ্টা দেরি করায় শেষে সেই পরীক্ষার্থীদের হাম্পি এক্সপ্রেসে করে পরীক্ষা কেন্দ্রে পৌঁছতে হয়। কিন্তু ততক্ষণে অনেকটাই দেরি হয়ে যায়। 

পরীক্ষার সময় ছিল দুপুর ২টো। রিপোর্টিং করার সময় ছিল দুপুর ১.৩০ মিনিটে। হাম্পি এক্সপ্রেসে করে পরীক্ষা কেন্দ্রে পৌঁছন দুপুর ২.৩০ মিনিটে। এক সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্য়মের কাছে এমনই জানিয়েছে ভারতীয় রেল।

পরীক্ষার্থীরা এই সমস্য়ায় পড়ায় দক্ষিণ পশ্চিম বিভাগের রেল-এর  জনসংযোগ দফতর মানবসম্পদ উন্নয়ন দফতরের কাছে পুনরায় পরীক্ষা নেওয়ার জন্য় আবেদন করআ হয়েছে। 

দক্ষিণ পশ্চিম রেল বিভাগের জনসংযোগ আধিকারিক সংবাদ সংস্থা এএনআই-এর কাছে জানান, যে ছাত্রছাত্রীরা সেদিন হাম্পি এক্সপ্রেস ধরে আসছিলেন এবং পরীক্ষা দিতে পারেননি, তাঁরা যাতে পুনরায় পরীক্ষা দিতে পারে, তার জন্য় মানব সম্পদ উন্নয়ন দফতকরের কাছে আবেদন করেছি। 

অন্য়দিকে কর্ণাটকের মুখমন্ত্রী সিদ্ধারামাইয়া এই ঘটনার জন্য় রেলমন্ত্রী পীযূশ গয়ালের সমালোচনা এর জন্য় নরেন্দ্র মোদীর উদ্দেশে একটি টুইটও করেন সিদ্ধারামাইয়া। তিনি লেখেন, আপনি আপনার নিজের পিঠ চাপড়ান অন্য়ান্য় সাফল্য়ের জন্য়। কিন্তু ক্য়াবিনেট মন্ত্রীরা ঠিক কাজ করছেন কি না সেই দায়িত্বটাও কি নেবেন! ১০০ জন পরীক্ষার্থী শুধুমাত্র ট্রেন সময়ে না আসায় পরীক্ষায় বসতে পারেননি। 

এই পরীক্ষার্থীরা যাতে আরও একবার নিট পরীক্ষায় বসার সুযোগ পান, সেই বিষয়টির দিকেও রেল মন্ত্রককে নজর দিতে বলেছেন কর্ণাটকের মুখ্য়মন্ত্রী। 

প্রসঙ্গত, রবিবার ওড়িশা ছাড়া সারা ভারতে দুপুর ২টো থেকে নিট পরীক্ষা ছিল। ফণী সাইক্লোনের জন্য় ওড়িশায় পরীক্ষা বাতিল করা হয়।